অভিনেত্রী পায়েলের মৃত্যু, হত্যা না আত্মহত্যা?

ডেস্ক রিপোর্টঃ মারা গেছেন কলকাতার অভিনেত্রী পায়েল চক্রবর্তী। শিলিগুড়িতে হোটেলের ঘরের দরজা ভেঙে পাওয়া গিয়েছে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ। মঙ্গলবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে এয়ারভিউ মোড়ের চার্চ রোডের কাছের একটি হোটেলে এই ঘটনা ঘটে। হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

কলকাতার বিভিন্ন গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় হোটেলে চেক-ইন করেছিলেন পায়েল। ছিলেন হোটেলের ১৩ নম্বর ঘরে। পরের দিন সকালে গ্যাংটক যাবেন বলে লিখেছিলেন হোটেলের রেজিস্টারে। সেই কথা জানিয়ে সকাল ৭টায় ডেকে দিতেও বলেছিলেন হোটেল কর্মীদেরও। বুধবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭টা থেকেই তাকে ডাকাডাকি শুরু করেন হোটেলের কর্মীরা। কিন্তু, সকাল ১১টা পর্যন্ত তার দেখা না মেলায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন হোটেলের কর্মচারীরা। বারবার দরজা ধাক্কা দেওয়ার পরও কোনো সাড়া না মেলায় খবর দেওয়া হয় শিলিগুড়ি থানায়।

পুলিশ আসার পর ভাঙা হয় ১৩ নম্বর ঘরের দরজা। ঘর থেকে উদ্ধার হয় পায়েল চক্রবর্তীর ঝুলন্ত মৃতদেহ। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, গভীর রাত পর্যন্ত ফোনে চিৎকার করে কথা বলতে শোনা যায় পায়েলকে। এতোটাই জোরে কথা বলছিলেন, যে হোটেল রুমের বাইরেও সেই আওয়াজ শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু তার ফোনটি এখনও পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যার ঘটনা, কারণ ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। খতিয়ে দেখা হচ্ছে তার ফোনের কল ডিটেলস। কথা বলা হচ্ছে, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গেও। তবে মৃত্যুর অন্য কোনো কারণ আছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। নিজেকে বিবাহিত বলে হোটেল রেজিস্টারে নাম লিখিয়েছিলেন পায়েল।

উল্লেখ্য, টেলিভিশনের পর্দায় বেশ জনপ্রিয় মুখ ছিলেন পায়েল। ‘চোখের তারা তুই’ আর ‘রূপায়ণ’, এই দুই ধারাবাহিকে তার অভিনয় দর্শকদের নজর কেড়েছিল। আসন্ন মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘কেলো’ তে অন্যতম মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। পাশাপাশি ‘ককপিট’ সিনেমাতেও দেবের নায়িকা হিসেবে ছিলেন তিনি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ