অসুস্থ বিএনপি নেতা মনিরুল হক চৌধুরীর জামিন শুনানী ফের পিছিয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম সমন্বয়ক, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এবং একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-১০ সংসদীয় আসনে প্রতিদ্বন্দ্বি কারাবন্দি মনিরুল হক চৌধুরীর জামিন আবেদনের শুনানী ফের পিছিয়েছে। রাস্ট্রপক্ষের আইনজীবীর আবেদনের প্রেক্ষিতে পরবর্তী শুনানীর তারিখ ১৫ জানুয়ারি ধার্য করা হয়েছে। কুমিল্লা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আলী আকবর বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি জেলার চৌদ্দগ্রামে দুর্বৃত্তদের পেট্রোল বোমা হামলায় বাসের ৮ যাত্রী নিহতের ঘটনায় দু’টি মামলায় মনিরুল হক চৌধুরী হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে ছিলেন এবং আদালতে বিভিন্ন তারিখে তিনি হাজির ছিলেন। গত বছরের ২৪ অক্টোবর জেলা জজ আদালতের বিচারক তাঁর জামিন বাতিল করেন। পরে ওই দুটি মামলায় গত বছরের ৪ নভেম্বর হাইকোর্ট থেকে তাঁর জামিন আদেশ হয়। এরপর জেলার সদর দক্ষিণ মডেল থানার সন্ত্রাস বিরোধী ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের পৃথক দুটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়। এরমধ্যে সন্ত্রাস বিরোধী আইনের মামলায় তিনি জামিন লাভ করেন। অপর মামলায় গত বছরের ২৬ নভেম্বর তার জামিন আবেদনের শুনানীর দিন ধার্য ছিল। ওই তারিখে রাস্ট্রপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত চলতি বছরের ২ জানুয়ারি অধিকতর শুনানীর দিন ধার্য করে আদেশ দেয়। মনিরুল হক চৌধুরীর পক্ষের আইনজীবী অ্যাড. কাজী নাজমুস সা’দাত জানান, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে (৩০ ডিসেম্বর) মনিরুল হক চৌধুরী প্রার্থী হওয়ায় ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করা হলে ১ জানুয়ারি পর্যন্ত তাকে জামিন দেয় হাইকোর্ট। এতে সরকার পক্ষ আপিল দায়ের করলে হাইকোর্টের ওই আদেশ বহাল থাকে এবং অ্যাপিলেট কোর্ট মনিরুল হক চৌধুরীকে জেলা জজ আদালতে হাজির হওয়ার আদেশ দেয়। এদিকে পূর্বের ধার্যকৃত ২ জানুয়ারি জেলা ও দায়রা জজের পদ অবসরজনিত কারণে ওইদিন শুনানী হয়নি এবং ১০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) শুনানীর দিন রাখা হয়। এসব মামলার এজাহারে মনিরুল হক চৌধুরীর নাম নেই। রাস্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান লিটন জানান, এ মামলায় আদালত মনিরুল হক চৌধুরীর জামিন শুনানীর পরবর্তী তারিখ ১৫ জানুয়ারি ধার্য করেছেন।

মনিরুল হক চৌধুরীর মেয়ে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. চৌধুরী সায়মা ফেরদৌস বলেন, ‘আমার বাবা তাঁর দীর্ঘ ৫৫ বছরের রাজনৈতিক জীবনে কখনো প্রতিহিংসার রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেননি, অথচ সম্পূর্ণ রাজনৈতিক কারণে একের পর এক মিথ্যা ও গায়েবি মামলায় তিনি কারাবন্দি আছেন। নানান জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর জীবন সংকটাপন্ন হয়ে পড়েছে। আমরা অবিলম্বে তাঁর মুক্তির দাবি জানাচ্ছি।’
উল্লেখ্য, গত বছরের ২৪ অক্টোবর থেকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি মনিরুল হক চৌধুরীকে অসুস্থ অবস্থায় ৫ জানুয়ারি কেরানীগঞ্জ কারাগারে প্রেরণ করা হয় এবং সেখান থেকে পরদিন (৬ জানুয়ারি) তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ