আজ ব্রাজিলের ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন

ডেস্ক রিপোর্টঃ রাশিয়া বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত ব্রাজিলের খেলা কেমন লেগেছ? এই প্রশ্নের জবাবে ‘সেলেসাও’দের ভক্তরা ‘দারুণ খেলছে’ এমন উত্তর দিতে কিছুটা দ্বিধা করবেন। কারণ বিশ্বকাপে এ পর্যন্ত দুই ম্যাচ খেলেছে ব্রাজিল। হয়তো কোনো ম্যাচ হারেনি তারা, তবে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের খেলা দেখে ঠিক মন ভরছে না ফুটবলপ্রেমীদের। ‘সাম্বার’ ছন্দতো নেই, সুর-তাল-লয়ও কেটে যাচ্ছে নেইমারদের।

বুধবার (২৭ জুন) বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় মস্কোয় সার্বিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে ব্রাজিল। নকআউট পর্বে উঠতে এই ম্যাচটা কোনোভাবেই হারা চলবে না তিতের শিষ্যদের। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ব্রাজিলের কাছে সার্বিয়া কঠিন প্রতিপক্ষ। তবে বর্তমান ব্রাজিলের কাছে তারা কতটা টিকে থাকতে পারবে তা অবশ্য মাঠেই দেখা যাবে।

দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার জন্য সার্বিয়ার বিপক্ষে জয় অথবা ড্র করতে হবে ব্রাজিলকে। তবে ড্রয়ের চিন্তা মাথায় নেই ব্রাজিল বস তিতের। তিনি এই ম্যাচে জয় ছাড়া কিছু্ই ভাবছেন না। এজন্য আজ ম্যাচের একাদশে পরিবর্তন না আনার কথাও জানিয়েছেন তিনি।

তবে দলে কোনও পরিবর্তন না আনলেও ব্রাজিলের অধিনায়কত্বে আসছে পরিবর্তন। চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে তৃতীয় অধিনায়ক পাচ্ছে ব্রাজিল। আর এদিন অধিনায়কত্বের আর্মব্যান্ড পরে মাঠে নামবেন ডিফেন্ডার জোয়াও মিরান্দা। এর আগে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মার্সেলো এবং কোস্টারিকার বিপক্ষে সিলভা অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পালন করেন।

দল অপরিবর্তিত থাকার বিষয়ে কোচ তিতে বলেন, ‘সার্বিয়ার বিরুদ্ধে দলে কোনও পরিবর্তন হচ্ছে না। আগের ম্যাচে যারা খেলেছিল, তারাই শুরু করবে।’

আর সার্বিয়ার বিপক্ষে অধিনায়কত্ব করতে যাওয়া মিরান্দা বলেন, ‘কোস্টারিকার বিরুদ্ধে দুর্দান্ত জয় দলের আবহটাই বদলে দিয়েছে। সব সমস্যা দূর হয়ে গিয়েছে।’

অধিনায়ক হতে পেরে রোমাঞ্চিত মিরান্দা বলেন, ‘ব্রাজিল জাতীয় দলের অধিনায়ক হওয়ার চেয়ে গৌরবের কিছু হয় না। আমার জীবনের অন্যতম স্মরণীয় দিন। অধিনায়ক না-হলেও আক্ষেপ থাকত না। আমার প্রধান লক্ষ্য ব্রাজিলের জার্সি গায়ে মাঠে নেমে নিজেকে উজাড় করে দেওয়া।’

দলের জয়ের ব্যাপারে মিরান্দা বলেন, ‘গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে শেষ ষোলোয় পৌঁছনোই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। তাই জয় ছাড়া আমরা অন্য কিছু ভাবছিই না এই মুহূর্তে।’

গত ম্যাচের শেষে মাঠেই কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন নেইমার। মঙ্গলবারের সংবাদ সম্মেলনে নেইমারের এমন আবেগকে সমর্থন করে তিতে জানালেন তারও আবেগের একটি ঘটনা।

ব্রাজিলের কোচ হিসেবে তার অভিষেকের ঘটনা জানাতে গিয়ে তিনি জানিয়েছেন, ‘কোপা আমেরিকার ব্যর্থতার পরে ২০১৬ সালে তিতের হাতে জাতীয় দলের দায়িত্ব তুলে দেন ব্রাজিল ফুটবল ফেডারেশনের কর্তারা। অভিষেক ম্যাচই বিশ্বকাপের যোগ্যতা অর্জন পর্বে ইকুয়েডরের বিরুদ্ধে। ৩-০ জিতেছিল ব্রাজিল। জোড়া গোল করেছিলেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। একটি গোল করেন নেইমার।’

তিতে বলেন, ‘জয়ের পরে স্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলার সময় আমি কেঁদে ফেলেছিলাম। পরিস্থিতি এমন ছিল যে, আবেগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ