ভারতের বিপক্ষে হারে সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন ভেঙে গিয়েছিল বাংলাদেশের। আর পাকিস্তানের বিপক্ষে পরাজয়ে শেষটা মলিন হলো টাইগারদের। দুই ম্যাচেই নিসঙ্গ নাবিক ছিলেন সাকিব আল হাসান। একা হাল ধরে এগিয়েছেন। কিন্তু কাউকে সঙ্গী হিসেবে পাননি।

এবারের বিশ্বকাপে সাকিব মাঠে নামা মানেই রেকর্ড বইয়ে আমূল পরিবর্তন। ব্যক্তিগতভাবে কতগুলো রেকর্ড হচ্ছে, সে হিসাব প্রতি ম্যাচেই রাখতে হচ্ছে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ফিফটি করে বিশ্ব ক্রিকেটের কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের অনন্য এক রেকর্ডও ছুঁয়েছেন। ব্যাট হাতে দারুণ এক বিশ্বকাপ কেটেছে সাকিবের। অনুমিতভাবেই, ব্যাটসম্যান র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়েছেন তিনি।

এদিকে বিশ্বকাপ শেষে রবিবার (৭ জুলাই) দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। বিশ্বকাপ দলের ১১জন ক্রিকেটার দেশে ফিরলেও আসেননি সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ, লিটন দাস ও সাব্বির রহমান।

স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে অবসর সময় কাটানোর জন্যই ইংল্যান্ড থেকে গেছেন সাকিব। আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে ছুটি চেয়েছেন তিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানিয়েছেন, গত বছরের মতো এবারো হজে যাওয়ার চিন্তা করছেন সাকিব। এ কারণেই বিসিবির কাছে তিনি ছুটি চেয়েছেন।

বিদেশি মিডিয়াকে নান্নু বলেছেন, সাকিব বিরতিহীনভাবে ক্রিকেট খেলতে খেলতে অনেকটাই ক্লান্ত। সম্ভবত এ জন্যই সে বিশ্রামের আবেদন করেছে। আমি যতদূর জানি, সে এবারো হজে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করছে; কিন্তু আমরা এখনো তার বিশ্রামের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি।

শুধু সাকিবই নন! শ্রীলংকা সিরিজে পাওয়া যাবে না লিটন দাস ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

এ প্রসঙ্গে প্রধান নির্বাচক বলেছেন, ২৮ জুলাই বিয়ের পিঁড়িতে বসতে যাচ্ছে লিটন। তাই আমরা ভেবেই নিয়েছি যে, এই সিরিজে সে থাকবে না। অন্যদিকে মাহমুদউল্লাহর ব্যাপারে আমাদের সিদ্ধান্ত নেয়া বাকি আছে। কেননা সে এখনো ইনজুরিমুক্ত নয়। তার মেডিকেল রিপোর্ট আসার পর তাকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারব আমরা।

প্রসঙ্গত, আসন্ন শ্রীলঙ্কা সফরে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচগুলো আগামী ২৫, ২৭ ও ২৯ জুলাই দেশটির রাজধানী কলোম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে বলেই জানিয়েছে বিসিবি।