ইচ্ছে করেই সাপের কামড় খান তিনি

ডেস্ক রিপোর্টঃ সাপের নাম শুনলেই আতঙ্কের এক শীতল স্রোত বইতে শুরু করে অধিকাংশ মানুষের শরীরে। কারণ সাপ এমন এক প্রাণী যা বিষধর হোক বা না হোক, মানুষ তাকে নিয়ে সবসময়ই ভয় অনুভব করে। তবে ভয়াল সেই অনুভূতিকে জয় করা মানুষও পৃথিবীতে আছেন। সেই স্বল্প সংখ্যক মানুষেরই একজন জো কুইলিয়ান।

ফিলিপাইনের ৩১ বছর বয়সি এই যুবক এরই মধ্যেই ‘ভেনম ম্যান’ বা বিষমানব উপাধি পেয়ে গেছেন। তার সবচেয়ে মজার বিষয়টি হল এই যে, তিনি ইচ্ছে করেই ভয়ংকর বিষধর সাপদের কামড় খান। তারপর বিষক্রিয়াকে নিজের শরীরে ধারন করেন। এই বিষয় অনুশীলন করতে করতে এখন এমন একটি অবস্থা তৈরী হয়েছে যে সাপের কামড় খাওয়াকেই নিজের প্যাশন বানিয়ে ফেলেছেন তিনি। সপ্তাহে অন্তত একবার তিনি বিষাক্ত সাপের দংশন সহ্য করেন।

১৪ বছর বয়সে সাপ পোষা শুরু করেন এই ফিলিপিন কিংবদন্তি। সে বছরই প্রথমবারের মত নিজের প্রিয় গোখরা সাপের কামড় খান তিনি। কামড় খেয়ে হাসপাতারে যাওয়া দূরে থাক পুরো বিষক্রিয়া আশ্চর্যজনকভাবে নিজের মাঝে হজম করেন তিনি। সেবার অবশ্য সেরে উঠতে বেগ পেতে হয় তাকে। প্রচুর ঔষুধ খেতে হয় সে যাত্রায়।

সেই থেকে শুরু। এরপর থেকে আরো প্রায় ৯০ প্রজাতির বিষধর সাপের দংশন সহ্য করেছেন একান্ত নিজের আগ্রহে। পরবর্তীতে এটা তার হ্যাবিট ও প্যাশনে পরিণত হয়। নিজের একটি আঙ্গুলও খুইয়েছেন এ কারণে; তবু বাদ দেননি এই মরণখেলা। এখন নিজের বাড়িতে বিভিন্ন জাতের সাপ পোষেণ তিনি। সেই সাথে প্রতি সপ্তাহে একবার করে হলেও সাপের দংশনও হজম করে যাচ্ছেন নিয়মিত। বিষক্রিয়ার সাথে তার এভাবে অভ্যস্ত হওয়া এবং মানিয়ে নিতে পারাটা অত্যাশ্চর্য ক্ষমতা বলে স্বীকার করেছেন অনেকে। সত্যিই কতো বিচিত্র এই পৃথিবী, আর তার অধিবাসীরা।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ