ইত্যাদির প্রতি অনুষ্ঠানে কত টাকা নেন হানিফ সংকেত?

ডেস্ক রিপোর্টঃ বাংলাদেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’। ইতিহাস, ঐতিহ্য, সভ্যতা, সংস্কৃতি, প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এবং পর্যটন সমৃদ্ধ আকর্ষণীয় স্থানগুলোতে গিয়ে ‘ইত্যাদি’ ধারণ এই অনুষ্ঠানের অন্যরকম একটি আকর্ষণ।

কৌতুকাশ্রয়ী ব্যাঙ্গাত্মক এই অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক হানিফ সংকেত। ১৯৯০-এর দশকে শুরু হওয়া এই অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় অনুষ্ঠান হিসাবে স্থান করে নিয়েছে। প্রায় ২৭ বছর ধরে ইত্যাদি প্রচারিত হচ্ছে।

ইত্যাদির প্রতি অনুষ্ঠানের জন্য হানিফ সংকেত নেন ১.৫ – ২ লক্ষ টাকা। এবং তার বর্তমান ব্যবহার কারী গাড়ীটির মুল্য ২০-৩৪ লক্ষ টাকা।

আজ শুক্রবার (২৯ ডিসেম্বর) রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে একযোগে প্রচার হবে গণমানুষের প্রিয় অনুষ্ঠান ইত্যাদি। এবারের ‘ইত্যাদি’ পর্ব ধারণ করা হয়েছে প্রকৃতির অনন্য সৃষ্টি কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে।

অনুষ্ঠানে এবারের পর্বে রয়েছে কক্সবাজারের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর উপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন।

সম্প্রতি তিনবার গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস্‌ অর্জনকারী মাগুরার হালিমের ওপর রয়েছে একটি অনুকরণীয় প্রতিবেদন। ১৯৯৫ সালে যাকে প্রথম দর্শকদের সামনে উপস্থাপন করেছিল ‘ইত্যাদি’।

কক্সবাজারের হিমছড়ি যাওয়ার পথে মেরিন ড্রাইভের পাশে সামনে পাহাড় আর পেছনে সমুদ্র, তার মাঝে সৈকতে তৈরি করা ‘ইত্যাদি’র সেট। রাতে কক্সবাজারের প্রাকৃতিক রূপ আর সাগরের ফেনিল জলের ঢেউ দেখানো সম্ভব নয়, তাই ১৩ ডিসেম্বর এখানে ‘ইত্যাদি’র ধারণ পর্ব শুরু হয় গোধূলি লগ্নে। আমন্ত্রিত দর্শক ছাড়াও কয়েক হাজার দর্শক আশপাশের পাহাড়, গাছ আর রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে উপভোগ করেন অনুষ্ঠান।

ঠাকুরগাঁও জেলার এক নিভৃত পল্লীতে গড়ে তোলা একটি ব্যতিক্রমধর্মী জাদুঘর ‘লোকায়ন জীবন বৈচিত্র্য জাদুঘর’-এর ওপর রয়েছে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন। এবারের বিদেশি প্রতিবেদনে রয়েছে পবিত্র মদিনা শরীফের একটা ব্যতিক্রমী রাস্তা।

‘ইত্যাদি’তে এবার মূল গান রয়েছে দু’টি। সেসবের একটি গেয়েছেন কক্সবাজারের সৈকত শিল্পী জাহিদ এবং তার সঙ্গে গেয়েছেন চট্টগ্রামেরই সন্তান জনপ্রিয় শিল্পী রবি চৌধুরী। সঙ্গে ইউকিলিলি বাজিয়েছেন ইমরান। সাগর নিয়ে একটি পুরানো জনপ্রিয় গান ধারণ করা হয় সমুদ্র সৈকতে। গানটিতে অভিনয় করেছেন অভিনয় তারকা তারিন ও মীর সাব্বির।

এছাড়াও রয়েছে চট্টগ্রামের শিল্পী মিঠুন চক্র ও ইমতিয়াজ আলী জিমির পরিবেশনায় যন্ত্র সংগীতের লীলামুখর খেলা-সাগর সংলাপ। ঢেউ আর যন্ত্রের তালে ব্যতিক্রমী এই যন্ত্রসংগীতটি দর্শকদের ভিন্ন স্বাদ দেবে। অনুষ্ঠানের দর্শক পর্বে এবার কক্সবাজারকে ঘিরে প্রশ্নোত্তরের মাধ্যমে হাজার হাজার দর্শকের মাঝখান থেকে ৬ জন দর্শক নির্বাচন করা হয়।

২য় পর্বে সাগর নিয়ে তিনটি খণ্ড নাট্যাংশে তারা অভিনয় করেন। যা ছিল বেশ উপভোগ্য। নিয়মিত পর্বসহ এবারও রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশ কিছু সরস অথচ তীক্ষ্ন নাট্যাংশ।

রীতি মেনে ভীতি, কর্মফলের মর্মকথা, রাশিফলে বাসি কথা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের প্রভাব, চোর কথন, শপথ ভঙ্গের শপথসহ বিভিন্ন বিষয়ের ওপর রয়েছে বেশ কয়েকটি নাট্যাংশ। বরাবরের মতো এবারও ইত্যাদির শিল্প নির্দেশনা ও মঞ্চ পরিকল্পনায় ছিলেন অনুষ্ঠানের নিয়মিত শিল্প নির্দেশক মুকিমুল আনোয়ার মুকিম।

এবারের ইত্যাদিতে উল্লেখযোগ্য শিল্পীরা হলেন এস এম মহসিন, সোলায়মান খোকা, মহিউদ্দিন বাহার, ডা. এজাজুল ইসলাম, জিয়াউল হাসান কিসলু, আবদুল আজিজ, কাজী আসাদ, সুভাশিষ ভৌমিক, আবদুল কাদের, আফজাল শরীফ, শবনম পারভীন, জিল্লুর রহমান, কামাল বায়েজিদ, বিলু বড়ুয়া, নিপু, রতন খান, আমিন আজাদ, আনোয়ার শাহী, তারেক স্বপন, জামিল, সজল, নিসা, জাহিদ চৌধুরী, সাজ্জাদ সাজু, ইমিলা, হাশিম মাসুদ, নজরুল ইসলাম, মনজুর আলমসহ আরো অনেকে।

পরিচালকের সহকারী হিসেবে ছিলেন যথারীতি রানা ও মামুন। ইত্যাদি রচনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। অনুষ্ঠানটি স্পন্সর করেছে যথারীতি কেয়া কস্‌মেটিকস্‌ লিমিটেড।

অনুষ্ঠানটির শিল্প নির্দেশনা ও মঞ্চ পরিকল্পনা করেছেন মুকিমুল আনোয়ার। ‘ইত্যাদি’ গ্রন্থনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত। নির্মাণ করেছে ফাগুন অডিও ভিশন। বাংলাদেশ টেলিভিশনে অনুষ্ঠানটি প্রচারিত হবে ২৯ ডিসেম্বর রাত আটটার বাংলা সংবাদের পর।

উল্লেখ্য, প্রায় ২৭ বছর ধরে ইত্যাদি প্রচারিত হচ্ছে। এর প্রধান আকর্ষণীয় দিক হলো সমাজের নানা অসংগতিকে বিদ্রুপ ও রসময় করে উপস্থাপনা।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ