কাল বৈশাখীর তান্ডবে লণ্ডভণ্ড বুড়িচংয়ের কোরপাই গ্রাম

মো. জাকির হোসেনঃ সোমবার দুপুরে অঝোড় ধারার বৃষ্টির সঙ্গে বহমান ৫মিনিটের কাল বৈশাখী ঝড়ের তান্ডবে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের কোরপাই গ্রামের ২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ গ্রামের কৃষকের ২০-২৫ টি ঘর লন্ডভন্ড হয়ে যায়। কয়েকটি বিদ্যুতের খুটি এবং তার ক্ষতিগ্রস্ত করে। এসময় ঝড়ের তান্ডবে বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান , শতাধিক কাঠ ও ফলের গাছ এবং ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। খবর নিয়ে জানা গেছে কোন প্রানহানীর ঘটনা ঘটেনি।

প্রত্যক্ষদর্শী সিএনজির কেরানী আব্দুল জলিল ও এলাকাবাসী জানায় , সোমবার দুপুর ১.৫০মিনিটে ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে কাল বৈশাখী ঝড়ে উপজেলার কোরপাই গ্রামে আঘাত আনে। এর পূর্বে ঘন্টা ব্যাপী প্রচন্ড বেগে ঝড়ো বৃষ্টি হয়। হঠাৎ করে প্রচন্ড বেগে কাল বৈশাখী ঝড়ে আঘাত আনে। এসময় স্থানীয় আমীর হোসেন মাষ্টারের একটি ছাত্রাবাসের টিনের চাল উড়িয়ে নিয়ে যায় এবং ৫শত মিটার দূরে গাছের ঢালে এবং ফসলের মাঠে ছিন্নবিছিন্ন করে ফেলে দেয়। পরে একটি সিরাজী চাইল্ড কেয়ার একাডেমীর নামের একটি শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আঘাত এনে টিনের চাল উড়িয়ে নেয় এবং ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত করে।

স্থানীয় বাবুল মিয়ার একটি মুরগির ফার্ম, যেসমস্থ কৃষকরা ঝড়ের তান্ডবে গৃহ হারা ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তারা হলেন মনির হোসেন, সোলেমান, আমির হোসেন, ফজলু মিয়া, আব্দুল অদুদ, হারুন মিয়া, মফিজুল ইসলাম, হাফিজ মিয়া, জমির উদ্দীন, রমিজ উদ্দীন, রফিক, শুক্কুর মিয়া সহ আরোও অনেকের। এছাড়া ঝড়ের তান্ডবে কয়েকটি বিদ্যুতের খুটি ভেঙ্গে যায় এবং বিদ্যুতের তার ছিন্ন বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয় মোকাম ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ফজলুল হক মুন্সি বলেন কাল বৈশাখী ঝড়ে এলাকার ঘর-বাড়ি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যাপক ক্ষতি করে। শতাধিক কাঠ ও ফল গাছ ঝড়ের তান্ডবে ভেঙ্গে পড়ে যায়। এতে প্রায় ফসল সহ কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়।

এ ব্যাপারে বুড়িচং উপজেলার চেয়ারম্যান মোঃ আখলাক হায়দার, উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইমরুল হাসান বলেন ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদেরকে সরকারি ত্রান তহবিল থেকে সাহায্য সহযোগীতা করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ