কাশ্মীরবাসী এখন স্বপ্ন দেখে আগেকার দিনগুলোর। হয়তো মূল্যবাণ কিছু হারিয়ে ফেলেছে তারা। আর তাইতো কাশ্মীরের ছোট শিশুদেরও তীব্র ক্ষোভ রয়েছে ভারতীয় সেনাদের ওপর। আর এ ধরণের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বেশ সাড়া ফেলেছে। অনেকে এর প্রশংসা করে কাশ্মীরিয়দের সাথে কাধে কাধ মিলিয়ে প্রয়োজনে যুদ্ধের ঘোষণা দিয়েছে।

৩৭০ ধারা এবং ৩৫ (ক) অনুচ্ছেদ কাশ্মীরিদের কাছে বিশেষ মর্যাদার বিষয় ছিল। যা বাতিলের ফলে ৭০ বছরের বিশেষ মর্যাদা হারিয়েছে কাশ্মীয়রা।

এ ধরার ফলে বাইরে থেকে কেউ এসে কাশ্মীরে জমি কিনতে পারত না। তাছাড়া সরকারি চাকরি ও বিভিন্ন ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারত শুধু কাশ্মীরের স্থানীয় বাসিন্দারাই। কিন্তু এ বিশেষ ধারা বাতিলের ফলে এবার থেকে বিশেষ কোন সুবিধা পাবে না কাশ্মীরবাসীরা।

সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া ওই ছবিতে দেখা যায় মাত্র বছর পাঁচের একটি শিশু প্লাস্টিকের গুলতি তাক করে আছে অস্ত্রে সজ্জিত ভারতীয় সেনার দিকে। স্বাধীনতাকামী কাশ্মীরিদের আন্দোলনের এক পর্যায়ে ছবিটি তোলেন ভারতীয় ফটোগ্রাফার আদিত্য রাজ।

কাশ্মীরিদের আন্দোলনের প্রতীকী রূপ হয়ে ছবিটি ঘুরছে সামাজিক মাধ্যমে।

এক মাস আগে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী নেতা বুরহানের মৃত্যুর পর থেকেই উত্তাল হয়ে ওঠে ‘ভূ-স্বর্গ’ কাশ্মীর। প্রতিবাদ, মিছিল, সমাবেশ- এর মধ্যে অনেক স্বাধীনতাকামী প্রাণ হারিয়েছেন সেনাদের গুলিতে। সেনাদের শক্তির তুলনায় কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামীরা নিতান্তই নগণ্য, দুর্বল।