কুবিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

কুবি প্রতিনিধিঃ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিজ বিভাগের দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। যৌন হয়রানির শিকার ঐ দুই ছাত্রী সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন। দীর্ঘদিন ধরে ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও কাজী নজরুল ইসলাম হলের প্রাধ্যক্ষ জি এম আজমল আলী কাওসার তাদেরকে যৌন হয়রানি করে আসছেন বলে আভিযোগ করেন তারা। এর আগেও রবিবার রাতে তারা অভিভাবকসহ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সভাপতি বরাবর অভিযোগ করেন বলে জানা যায়।

জানা যায়, অভিযুক্ত শিক্ষক আজমল আলী কাওসার সান্ধ্যকালীন (ইএমবিএ) কোর্সের দুই ছাত্রীকে বেশ কয়েকদিন ধরেই অপত্তিকর প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। এছাড়াও ঐ শিক্ষক তার স্পর্শকাতর অঙ্গের আপত্তিকর ছবিও ঐ ছাত্রীদের মেসেঞ্জারে পাঠাতেন। এঘটনায় ঐ ছাত্রী অভিযুক্ত আজমল আলীকে মেসেঞ্জার থেকে ব্লক করে দেন। এক পর্যায়ে ঐ দুই ছাত্রী বিভাগের সভাপতির কাছে মৌখিক অভিযোগ দেয়ার পর সোমবার রেজিস্ট্রারের নিকট লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন।

অভিযোগের বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক জি এম আজমল আলী কাউসার বলেন, ‘আমিতো জানিনা তারা কি লিখিত দিয়েছে। আমাদের মাঝে কিছু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিলো যা গতকাল বিভাগে আলোচনা করে সুরাহা করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(চলতি দায়িত্ব) ড. মো: আবু তাহের বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুই ছাত্রী লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।’

অনুসন্ধানে জানা যায়, ব্যাবস্থাপনা বিভাগের ঐ শিক্ষককের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। শিক্ষা ছুঁটিতে থাকা অবস্থায় ঐ শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ বোর্ডের সদস্য হিসেবে যোগদান করে ভাতা গ্রহন করতেন। এছাড়াও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছুটি নিলেও পিএইচডি না করেই চীনে চলে যান পিএইচডি করতে। ছুঁটিতে থাকা অবস্থায় আর্থিক সুবিধা গুলো ফেরত দেননি বলেও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ