কুমিল্লার দেবিদ্বারে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার দেবিদ্বারে শ্বাসরোধ করে রেহানা আক্তার নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রোববার দুপুরে জেলার দেবিদ্বার উপজেলার শিবপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত গৃহবধূ রেহানা আক্তার(৩০) ওই গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী এবং একই উপজেলার ভিংলাবাড়ী গ্রামের মৃত ইব্রাহিম খানের মেয়ে। সে ৩ মেয়ে এক ছেলের জননী ছিলেন।

ঘটনার পর থেকে সন্দেহভাজন ঘাতক স্বামী জাহাঙ্গীর আলম ও তার ভাই শানু মিয়া পালাতক রয়েছে। এ দিকে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধারের পর সোমবার দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের নিকট হস্তান্তর করেছে। এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূর ভাই শাহ আলম খান বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে।

নিহতের ভাই শাহ আলম খান জানান, প্রায় ১৩ বছর আগে সামাজিক ভাবে রেহানা-জাহাঙ্গীরের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে ৩ মেয়ে একটি ছেলে রয়েছে। খুব ভালোই চলছিল তাদের সংসার জীবন। সম্প্রতি জাহাঙ্গীর তার বড় ভাইয়ের শালিকার সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। সে ওই নারীকে বিয়ে করার জন্য পায়তারা শুরু করে। এতে পারিবারিক কলহ সৃস্টি হয়। এনিয়ে জাহাঙ্গীর বেশ কয়েকবার ঘুমের ঘরে বালিশ চাপা দিয়ে রেহানাকে হত্যার চেস্টা চালায়। কিন্তু সন্তানদের চিৎকারের কারণে তা সম্ভব হয়নি। সবশেষ রোববার দুপুরে শ্বাসরোধ করে স্বামী জাহাঙ্গীর আলম ও তার ভাই শানু মিয়া রেহানাকে হত্যার পর পালিয়ে যায়। পরে বিকেলে রেহানার ভাই শাহ আলমকে ফোন করে তার বোন আত্মহত্যা করেছে বলে সংবাদ দিয়ে মোবাইল বন্ধ করে দেয়।

এ বিষয়ে দেবিদ্বার থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার জানায়, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। নিহতের ভাই বাদী হয়ে থানায় মামলা দিয়েছে। আমরা সন্দেহভাজন স্বামী এবং ভাসুরকে গ্রেফতার করতে চেস্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ