ডেস্ক রিপোর্টঃ লাকসামে স্বামীকে দিয়ে শিশু কন্যার বান্ধবীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ১৩ই এপ্রিল পৌর শহরের উত্তর লাকসাম এলাকার নজির ভান্ডারির বাড়িতে। ধর্ষণের শিকার ওই শিশু কন্যাটি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ।

মামলা সূত্রে জানা যায় ১৩ই এপ্রিল দুপুরে তিশা বাসের চালক আবু তাহের খাবারের উদ্দেশ্য উত্তর লাকসাম এলাকার নজির ভান্ডারির বাড়ির ভাড়া বাসায় যায়। কিছুক্ষন পর শিশু কন্যার সাথে তার বান্ধবীও বাসায় আসে।

কৌশলে নিজ মেয়েকে অন্যত্র পাঠিয়ে দিয়ে স্ত্রী জেসমিন বেগমকে বাসার দরজায় পাহারা বসিয়ে মেয়ের বান্ধবীকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। শিশুর চিৎকার শুনে স্থানীয়রা শিশু কন্যাটিকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুমিল্লায় প্রেরন করেন। শিশুটি এখনও কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহা’র জামাত অনুষ্ঠিত

ধর্ষিতার পিতা বাদি হয়ে বান্ধবির বাবা আবু তাহের ও মা জেসমিন বেগম পাখিকে অভিযুক্ত করে কুমিল্লার লাকসাম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন।

শনিবার রাতে লাকসাম থানা পুলিশ বান্ধবীর মা জেসমিন বেগমকে বাসা থেকে আটক করে এবং লাকসাম রেলওয়ে জংশন এলাকা থেকে ধর্ষক আবু তাহেরকে গ্রেফতার করে।

লাকসাম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোজ কুমার দে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ