কুমিল্লার হোমনায় ৫ম শ্রেনীর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ

মারুফ আহমেদঃ কুমিল্লার হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের ৫ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রী (১১) ২৯ মার্চ দুপুরে একই গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৫০) কর্তৃক ধর্ষিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। গতকাল রোববার শিশুটির ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে কুমিল্লার জুডিশিয়াল ম্যাজেষ্টেট আদালতে জবানবন্দী দিয়েছে। এদিকে ঘটনার পর থেকে ধর্ষক ও তার সহযোগীরা দরিদ্র শিশুটির পিতাসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের ভয়ভীতি দেখানোর ফলে চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে শিশুটির পরিবার।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্র জানায়,জেলার হোমনা উপজেলার চান্দেরচঁর ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর (আড়ালিয়া) গ্রামের মোবারক হোসেনের ৫ম শ্রেনী পড়–য়া স্কুল শিক্ষার্থী ২৯ মার্চ দুপুরে স্থানীয় বাজারে কেরোসিন ক্রয় করে ঘরে ফেরার পথে একই গ্রামের রফিকুল ইসলাম কৌশলে শিশুটিকে জোর করে তার ঘরে নিয়ে ধর্ষন করে। এসময় শিশুটি চিৎকার করার চেষ্টা করলে ধর্ষক তার মুখ চেপে ধরে। এরপর বিষয়টি কাউকে না বলার কথা বলে এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে ছেড়ে দিলে সে বাসায় ফিরে ধর্ষনের কথা বলে কান্নাকাটি শুরু করে। তখন দ্রুত বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এসময় ধর্ষক ও তার সহযোগীরা শিশুটির পরিবারকে প্রলোভনসহ ভয়ভীতি দেখায়। গত শনিবার স্থানীয় এক যুবক বিষয়টি জেনে দরিদ্র শিশুটির পরিবারের সাহায্যে এগিয়ে আসলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বাসার ও ঘটনাটি জেনে তিনিও ওই শিশুটির পরিবারের সাহায্যে হাত বাড়ান। এক পর্যায়ে বিষয়টি পুলিশের নজরে আসলে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য রোববার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে হোমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রসুল আহমেদ নিযামী বলেন,শিশুটিকে ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে গতকাল রোববার বিকেলে কুমিল্লা জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট রোকেয়া বেগমের আদালতে পাঠানো হলে শিশুটি ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়। তিনি আরো বলেন,আসামীকে গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। এব্যাপারে শিশুটির বাবা মোবারক হোসেন বাদী হয়ে ধর্ষনের মামলা রুজু করেছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ