কুমিল্লার ১৮ কুখ্যাত মাদক কারবারি

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা জেলায় ১৮ জনকে কুখ্যাত মাদক কারবারি হিসেবে চিহ্নিত করেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে পাঁচ থেকে ১০টি করে মাদকের মামলা রয়েছে।

তবে এদের মধ্যে ‘বনেদি’ মাদক কারবারির নাম নেই বলে অভিযোগ রয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কয়েকজন অসাধু কর্মকর্তার সঙ্গে তাদের সখ্য থাকায় এই তালিকায় তাদের নাম নেই বলে অভিযোগ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুখ্যাত মাদক কারবারিদের মধ্যে শীর্ষে আছে কুমিল্লার উত্তর ছনগাঁওয়ের মো. রফিকুল ইসলাম। তালিকায় আরো আছে কুমিল্লার দক্ষিণ চর্থার সাজ্জাদ, কোতোয়ালি থানার আড়াইওরা গ্রামের রাসেল, বুড়িচং থানার ফরিজপুর পশ্চিমপাড়ার মো. আজাদ, ব্রাহ্মণপাড়ার শশীদল উত্তরপাড়ার মো. রিপন, বুড়িচং থানার উত্তর পাশে আলী আকবর মাস্টার বাড়ির নাইম আহমেদ পলাশ, কুমিল্লার পশ্চিম রেইসকোর্সের রেললাইনের পূর্ব পাশের জিন্নাতুন্নেছা বেবী, কুমিল্লা শহরের শাসনগাছার দুলাল মিয়া, শাসনগাছা মানিক মিয়াদের বাড়ির মোসা. মোহনী বেগম, পশ্চিম রেইসকোর্স আলমগীর মিয়ার ভাড়াটিয়া পাখি বেগম, শাসনগাছা রেললাইনের পশ্চিম পাশের হোসনা বেগম, শহরের ধর্মপুরের রাজীব ওরফে রাজু, ধর্মপুরের রুমা আক্তার বুড়ি, কোতোয়ালি থানার দ্বিতীয় সুজানগর এলাকার মো. মাসুম, সুজানগর চৌমুহনীর ইমান হোসেন, সুজানগরের মো. হানিফ মিয়া, ব্রাহ্মণপাড়ার শশীদল পশ্চিমপাড়ার মো. রিপন মিয়া ও ব্রাহ্মণপাড়ার নাগাইশ মোখলেছ মেম্বারের বাড়ির মো. দেলোয়ার হোসেন।

সূত্র জানায়, কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানাধীন সদর উপজেলা এলাকায় ২৫ জন মাদক কারবারি রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে পাঁচটির বেশি করে মামলা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে পশ্চিম রেইসকোর্সের মোসলেম মিয়া, জিন্নাতুন্নেছা ওরফে বেবী, ধর্মপুরের সুরাইয়া বেগম, সদর উপজেলার গাজীপুরের মোহাম্মদ আলী, শুভপুরের মো. কবির হোসেন, নূরপুর দক্ষিণপাড়া মসজিদের পেছনের মো. নূর আলম ওরফে নুরা, কোতোয়ালির গোলাম আজম ওরফে আজম, চানপুর ভাবনা পুকুরপাড়ের লিটন, বাগিচাগাঁও স্টেশন রোডের মনিরুজ্জামান মনির, চান্দিনার ধানসিঁড়ির মো. মহরম আলী, শাসনগাছার মাস্টারপাড়ার মাফিয়া বেগম, শুভপুর পুলের মাথার পেয়ার মিয়া, চর্থা চৌমুহনীর নূরনাহার বেগম ওরফে নুরুন্নাহার, ধর্মপুর মেম্বার বাড়ির আলমগীর হোসেন, পশ্চিম রেইসকোর্স বাদশা মিয়ার বাজারের মোহাম্মদ সেলিম, শাসনগাছার সাদ্দাম, জামবাড়ি ফকিরবাড়ির পলাশ, কাটাবিল শাহজাহান মিয়ার বাড়ির আরিফ, শুভপুরের মফিজুল ইসলাম, ধর্মপুরের মো. রুবেল, গর্জনখোলার শাহিনা বেগম শাহিন, জোড়ামেহের কৃষ্ণপুর দক্ষিণপাড়ার জসিম, গাজীপুরের খোকন মিয়া, ধর্মপুরের মনির হোসেন, ও আমেনা বেগম, পূর্ব চানপুরের মাফিয়া বেগম, গাজীপুরের মোহাম্মদ আলী, শুভপুরের সিরাজুল কবির হোসেন প্রমুখ। তবে বুড়িচং ও চৌদ্দগ্রামের শীর্ষ কয়েক মাদক কারবারির নাম উঠে আসেনি তালিকায়।

কুমিল্লার পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন জানান, ‘আমরা অনেককে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছি। আরো কাজ চলছে, যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ