কুমিল্লায় ইউপি মেম্বারকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ দুই মেম্বারের বিরুদ্ধে

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার চান্দিনায় এক নারী ইউপি মেম্বারকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে একই ইউপির দুই মেম্বারের বিরুদ্ধে। রাতে ঘরে ঢুকে ওই নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়। এসময় তার চিৎকারে দৌড়ে আসেন প্রতিবেশীরা। তারা দুই জনকে ধরে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন। রবিবার রাতে চান্দিনা উপজেলার মাইজখার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত দুই ইউপি মেম্বার হলেন চান্দিনায় মাইজখা ইউনিয়নের যথাক্রমে ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার মো. শাহাজাহান ও  এবং ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার আবদুল করিম।

ভিকটিমের অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লার চান্দিনার মাইজখার ইউনিয়ন পরিষদের দুই মেম্বার দীর্ঘদিন ধরেই উত্ত্যক্ত করছিল সংরক্ষিত আসনের ওই নারী মেম্বারকে। রবিবার রাতে দুই ইউপি মেম্বার মো. শাহাজাহান ও আবদুল করিম ওই নারীকে ফোন দিয়ে বলে, জরুরি আলাপ করতে তার বাড়িতে আসছে। কিন্তু ওই নারী বাড়িতে না এসে পরদিন ইউনিয়ন পরিষদে কথা বলার অনুরোধ করেন। এরপরও রাত সাড়ে ১১টায় দুই ইউপি মেম্বার বাড়িতে ঢুকে মনোয়ারা বেগমকে তার ঘরে একা পেয়ে মুখ চেপে ও গলায় ছুড়ি ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। তবে ওই নারীর চিৎকারে আশপাশের মানুষ ছুটে এসে দুই জনকে পিটুনি দিয়ে পুলিশকে খবর দেন।

চান্দিনা থানার ওসি মোহাম্মদ আলী মাহমুদ ঘটনা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। আটক দুই ইউপি মেম্বারকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ওই নারী মেম্বার নিজে বাদী হয়ে একটি ধর্ষণচেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন। পরে অভিযুক্তদের গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

এলাকাবাসী দুই মেম্বারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: