ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় পুলিশ কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেয়ার নামে নগদ আড়াই লাখ টাকা এবং ৩ লাখ টাকার চেক হাতিয়ে নিয়ে প্রতারণার দায়ে সাইদুল ইসলাম নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে কুমিল্লা ডিবি পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

প্রতারক সাইদুল ইসলাম কাউসার (২৫) জেলার আদর্শ সদর উপজেলার রামপুর গ্রামের মৃত আবু তাহেরের ছেলে। তিনি কুমিল্লা ক্লাবে কম্পিউটার অপারেটর পদে কর্মরত এবং শহরতলীর দৌলতপুর এলাকার আনোয়ার ভিলায় বসবাস করেন।

ডিবি সূত্রে জানা যায়, গত মে মাসে পুলিশে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর প্রতারক সাইদুল পুলিশ সুপারসহ উচ্চ পদে তার পরিচিত অফিসারের মাধ্যমে কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেয়ার নামে মামলার বাদী জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ইসমাইল হোসেনকে নিয়োগ প্রদানের জন্য সাড়ে ৫ লাখ টাকায় চুক্তিবদ্ধ হন।

বাদী সাইফুল জানান, চুক্তি মোতাবেক গত ১ জুলাই রাতে সাইদুলের বর্তমান ঠিকানা শহরতলীর দৌলতপুর আনোয়ার ভিলায় গিয়ে দেড় লাখ টাকা, পরে ৪ জুলাই রাতে কুমিল্লা ক্লাবের গেটে গিয়ে আরও এক লাখ টাকা এবং সোনালী ব্যাংক ব্রাহ্মণপাড়া শাখা থেকে ৩ লাখ টাকার চেক প্রদান করা হয়। কিন্তু নিয়োগের চূড়ান্ত তালিকায় চুক্তিমোতাবেক নাম না থাকায় টাকা ও চেক ফেরৎ চাইলে তা দিতে অস্বীকার করেন সাইদুল।

পরে পুলিশ সুপারের নির্দেশে ডিবি পুলিশ বিষয়টি তদন্ত শুরু করে। ডিবির এলআইসি টিমের প্রধান মুহা. ইকতিয়ার উদ্দিন জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর আমরা অভিযান চালিয়ে প্রতারক সাইদুলকে তার দৌলতপুরের বাসা থেকে গ্রেফতার করি। এ সময় তার কাছ থেকে ৩ লাখ টাকার একটি চেক উদ্ধার করা হয়। তিনি পুলিশের নাম ভাঙিয়ে নিয়োগের জন্য অর্থ হাতিয়ে নেয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। পরে মঙ্গলবার বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।