মো.জাকির হোসেনঃ পর্যটন জেলা কুমিল্লায় ঐতিহাস ঐতিহ্য ম-িত স্থানসমূহ ও জেলার সম্ভাব্য বিভিন্ন পর্যটন স্পটের সমন্বয়ে পর্যটন সার্কিট তৈরি কার্যক্রম গ্রহণ ও কুমিল্লায় পর্যটন স্পট সমূহের উন্নয়ন কল্পে গঠিত ’পর্যটন উন্নয়ন কমিটি’র সদস্যরা জেলার সম্ভাব্য পর্যটন স্পট সমূহ পরিদর্শন করেছেন।

যোগাযোগ মাধ্যমে উল্লেখ করে কালার ম্যাপ, গাইড বই এবং বিভিন্ন পর্যটন স্পটের সমন্বয়ে পর্যটন সার্কিট তৈরি কার্যক্রম গ্রহণের লক্ষ্যে কমিটির সদস্যগণ সরেজমিনে বের হয়।

৯ সদস্যের কমিটির সদস্যরা গতকাল দিনব্যাপি জেলার ব্রহ্মণপাড়া উপজেলায় মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার স্মৃতিবিজড়িত ও ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের প্রতিষ্ঠাতা মেজর গণি ও উপমহাদেশের প্রথম পাশকরা চিকিৎসক ডাঃ আব্দুস সোবহান এর জন্মস্থান নাগাইশ গ্রাম, মুরাদনগর উপজেলায় জাতীয় কবির স্মৃতিবিজড়িত কবিতীর্থ দৌলতপুর গ্রাম এবং ঐতিহ্যবাহী শ্রীকাইল কলেজ পরিদর্শন করেন।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লা সদর হাসপাতালের ছাদের পলেস্তারা খসে পড়েছে

এসময় এলজিইডি’ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী সোহরাব আলীর নেতৃত্বে প্রতœতত্ব অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ড. আহমেদ আবদুল্লাহ, সাবেক জেলা কালচারাল অফিসার মো: বশিরুল আরোয়ার, সামাজিক সংগঠন ঐতিহ্য কুমিল্লার পরিচালক ও সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম ইমরুলসহ পর্যটন উন্নয়ন কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ১০ জানুয়ারী কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের সম্মেলণ কক্ষে জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীরের সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে কুমিল্লা জেলার পর্যটন স্পটের সার্কিট তৈরী ও প্রাক্কলণ প্রস্তুতি বিষয়ে আলোচনা শেষে এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী সোহরাব আলীকে প্রধান করে ৯ সদস্যের একটি আহবায়ক কমিটি গঠণ করা হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে নির্বাহী প্রকৌশলী, গুপূর্ত বিভাগ, নির্বাহী প্রকৌশলী পানি উন্নয়ন বোর্ড, বিভাগিয় বন কর্মকর্তা, সামাজিক বন বিভাগ, আঞ্চলিক পরিচালক, প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তর, সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাগন, সাবেক জেলা কালচার অফিসার বশিরুল আনোয়ার এবং সাংবাদিকদের মধে কুমিল্লা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও সাপ্তাহিক অভিবাদন পত্রিকার সম্পাদক আবুল হাসানাত বাবুল ও মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি ও সামাজিক সংগঠন ঐতিহ্য কুমিল্লার পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল।

>>আরো পড়ুনঃ  বুড়িচংয়ে ৫ বছর ধরে ভেঙ্গে আছে সেতু, ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে হাজারো যানবাহন

কমিটির প্রথম বৈঠকে উপস্থিত সদস্যদের কাছ থেকে পর্যটন স্পটের উন্নয়নে প্রস্তাব আহবান করা হয়। সেইসাথে একটি আহবায়ক কমিটি করা হয়। ওই কমিটির প্রস্তাবিত দাউদকান্দির প্লাবন ভুমিসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পট সমূহের সরেজমিনে পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

কুমিল্লার কোন কোন পর্যটন স্পটকে এই উন্নয়ন সর্কিটের আওতায় আনা যায় এ বিষয়ে কমিটি আগামী দুই সপ্তার মধ্যে একটি প্রস্তাবনা তৈরী করে তা জেলা প্রশাসক বরাবর দাখিল করবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ