ডেস্ক রিপোর্টঃ বন বিভাগ ও প্রশাসনের বাধা অমান্য করে জোর করে সরকারি গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার গালিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল আলমের বিরুদ্ধে।

বেশ কয়েক দিন ধরে রবিউল আলম উপজেলার গালিমপুর ইউনিয়নের বিজরা বাজার থেকে বাতেশ্বর পর্যন্ত সড়কের প্রায় শতাধিক গাছ কেটে নিয়েছেন। চেয়ারম্যানের এভাবে প্রকাশ্যে গাছ কাটার প্রতিবাদ করেছেন প্রশাসন ও স্থানীয় জনগণ।

ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে চেয়ারম্যান রবিউল আলমকে গাছ কাটতে নিষেধ করেন কুমিল্লা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মো. নুরুল করিম। কারও বাধাই মানছেন না চেয়ারম্যান।

এ বিষয়ে গালিমপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মজুমদার জানান, গালিমপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান রবিউল আলম কারও অনুমতি না নিয়ে জোর করে সরকারি গাছ কেটে নিয়ে যাচ্ছে। গত কয়েক দিনে কয়েক লাখ টাকার গাছ কেটে নিয়ে গেছেন তিনি। তিনি জানান, গাছ কাটার বিরুদ্ধে কথা বললে চেয়ারম্যান মামলা করার হুমকি দেয়। বিবর্তন সম্পাদক দিলীপ মজুমদার এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাকেও হুমকি দেন তিনি।

>>আরো পড়ুনঃ  বুড়িচংয়ে এক ফেরী ওয়ালার লাশ উদ্ধার

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মো. নুরুল করিম দেশ রূপান্তরকে জানান, গাছ না কাটতে চেয়ারম্যানকে নিষেধ করেছি, তিনি নিষেধাজ্ঞা মানছেন না। উপজেলা ইউএনওকে বিষয়টি জানিয়েছেন বলে জানান তিনি।

গাছ কাটার বিষয়ে চেয়ারম্যান রবিউল আলম জানান, বাউকসার খাল খননের জন্য কিছু গাছ কাটা হয়েছে, অনুমতি আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন খাল খননের জন্য গাছ কাটা হয়েছে অনুমতি লাগবে কেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বরুড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাজহারুল ইসলাম জানান, তদন্ত করে গাছ কাটার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ