কুমিল্লায় ফের অপচিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ !

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কংশনগর বাজার সংলগ্ন গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাধেঁর ভিতর অবৈধভাবে গড়ে উঠা গোমতী প্রাইভেট হাসপাতালে ডাক্তারের অপচিকিৎসায় ৩ দিনের এক নবজাতক শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

জানা যায়, জেলার দেবিদ্বার উপজেলার বারোউর গ্রামের আলাউদ্দিনের স্ত্রী শিরিন আক্তারের প্রসব বেদনা হলে তাকে বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা (উত্তর) ইউনিয়নের কংশনগর বাজার সংলগ্ন গোমতী নদীর প্রতিরক্ষা বাধেঁর ভিতর গড়ে উঠা গোমতী নামের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ৩১ জানুয়ারী বুধবার সন্ধ্যায় নিয়ে আসা হয়। ওই দিন রাত সাড়ে ৮টায় ডাক্তার তাহমিনা ও কামরুজ্জামান শিরিন আক্তারকে সিজার অপারেশন করে এক কন্যা সন্তান বের করে। এরপর থেকে নবজাতক ও মা ওই দু’ডাক্তারসহ রবিউল নামের আরো একজন সহ মোট ৩ জনের তত্ত্বাবধানে থাকেন।

সুত্র জানায়, জন্মের পর থেকেই শিশুটিকে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছিল। এসময় অভিভাবকদের চিকিৎসকরা শিশুটির চিকিৎসা সেবা চলছে বলে আশ্বস্থ করেন। বৃহস্পতিবার রাতে শিশুটির মৃত্যু হলেও ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা বিষয়টি গোপন রেখে জানান, শুক্রবার সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য নবজাতক শিশু ও তার মাকে গতকাল শুক্রবার সকালে শিশুটির পরিবারের সদস্যরা কুমিল্লায় নেওয়ার পথে ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক নবজাতকটিকে মৃত ঘোষনা করেন। পরে আবারো ফিরে আসে গোমতী হাসপাতালে। এসময় নিহতের পরিবারের সদস্যরা দাবী করেন অপচিকিৎসা, অবহেলায় নবজাতকটির মৃত্যু হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ