কুমিল্লায় বাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লার লাকসামে নোয়াখালীগামী হিমাচল বাসের সাথে লাকসামগামী যাত্রী বোঝাই নাম্বারবিহীন সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে সিএনজি ২জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের উত্তরদা ইউপির চন্দনা বাজার নামকস্থানে। নিহতরা হলো লাকসাম পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড পশ্চিমগাঁও গ্রামের ইদ্রিস মিয়া বাবুর্চি (৫৫) ও বাবুর্চির হেলপার নরপাটি ইউপির আমতলী গ্রামের আল আমিন (৩৫)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওইদিন ৪ যাত্রীসহ লাকসামগামী একটি নাম্বার বিহীন সিএনজি অটোরিস্কা চন্দনা বাজার পার হলে বিপরীত দিক থেকে আসা নোয়াখালীগামী একটি হিমাচল বাস সার্ভিসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় সিএনজি অটোরিস্কা যাত্রী ইদ্রিস বাবুর্চি ও হেলপার আল আমিন ঘটনাস্থলেই নিহত, অপর তিন যাত্রী বাবুর্চির হেলপার নরপাটি ইউপির ফুলগাঁও গ্রামের রহিমা বেগম একই গ্রামের নাজমা বেগম ও সিএনজি ড্রাইভার জুয়েল মিয়া গুরুতর আহত হন। এসময় স্থানীয়রা ছুটে এসে আহতদের উদ্ধার করে লাকসাম ফেয়ারহেল্থ হসপিটালে ভর্তি করে। উল্লেখ্য: উভয় পরিবহন বেপরোয়া গতির কারণে এ দুর্ঘটনার শিকার বলে স্থানীয়রা জানায়।

এ ব্যাপারে লাকসাম উপজেলা নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের আহবায়ক মোজাম্মেল হক আলম জানায়, সড়ক দুর্ঘটনাটি অত্যান্ত দুঃজনক। ঘটনার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাৎক্ষনিক হাইওয়ে পুলিশকে খবর দেই এবং হতাহতদের লাকসাম ফেয়ার হেল্থ হসপিটালে স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় প্রেরণ করি।

কুমিল্লা হাইওয়ে পুলিশের এসআই মোস্তফা কামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আমরা ছুটে এসেছি। বর্তমানে আহত ব্যক্তিরা আশঙ্কামুক্ত। গাড়িটিগুলো উদ্ধার করে হাইওয়ে থানায় নিয়ে যাচ্ছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ