কুমিল্লায় যুবদল সভাপতিকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাল পুলিশ!

ফাইল ফটো

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় শাহ পরান নামে ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতিকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে বরুড়া থানা পুলিশের বিরুদ্ধে।

ভুক্তভোগীর পরিবার ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে বরুড়া থানার এসআই সত্যজিত ভৌমিক ও এএসআই রবিউল আলম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রাত ৯টার দিকে শাহ পরানকে হোসেনপুর তার দোকান থেকে আটক করেন।

আটক করার বিষয়ে স্থানীয় লোকজন জানতে চাইলে পুলিশ জানায় তার বিরুদ্ধে জিআর মামলার ওয়ারেন্ট আছে। খবর পেয়ে তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদাউস সুমি ওই মামলায় জামিনকৃত কাগজপত্র থানায় জমা দেন।

আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে যুগান্তরকে পুলিশ জানায়, শাহ পরানের বড় বোন তাসলিমা আকতার বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় তাকে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

মঙ্গলবার কোর্টে পাঠানোর পর জানা যায়, পুলিশ বাদী হয়ে ৫৫ পিস ইয়াবা দিয়ে নতুন আরও একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়েছে।

এ বিষয়ে শাহ পরানের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদাউস সুমি জানান, আমার স্বামীর বিরুদ্ধে ইয়াবার মামলাটি ষড়যন্ত্র করে দায়ের করা হয়েছে। আমার স্বামী এ ধরনের কোনো কর্মকাণ্ডের সঙ্গে কখনোই জড়িত ছিল না। পুলিশ আটকের সময় বলেছে- আমার স্বামীর বিরুদ্ধে জিআর মামলার ওয়ারেন্ট আছে, তাই তাকে আটক করেছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আক্তার হোসেন বলেন, আটকের সময় দোকানের আশপাশে মানুষের উপস্থিতি ছিল। আমি খবর পেয়ে পুলিশের কাছে আটকের কারণ জানতে চাইলে পুলিশ জানায় শাহ পরানের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট আছে।

এ ব্যাপারে বরুড়া থানার এএসআই রবিউল বলেন, আমি তাকে শুধু আটক করেছি।

এসআই সত্যজিত বলেন, আটকের সময় তার কাছে ৫৫ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। আটকের সময় রাত বেশি হওয়ায় স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ও কাউকে দেখানো যায়নি।

সূত্রঃ যুগান্তর

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ