কুমিল্লায় সম্পত্তির বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩

মারুফ আহমেদঃ কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার বারপাড়া (প:) গ্রামে সম্পত্তির বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের ভাড়াটে গুন্ডা জামাল ও আশিকের হামলায় আহত হয়েছে তিনজন। ভোক্তভোগীরে দাবী জোর পূর্বক পারিবারিক কবর স্থানের গাছ কাটতে চাইলে বাধা দিলে কুপিয়ে জখম করে জামাল ও আশিক। গতকাল রবিবার (৯ এপ্রিল) বারপাড়া পশ্চিমপাড়া কবরস্থানের সামনের এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় এলাকার সর্দার হুমায়ুন কবির দুই পক্ষকে মিমাংসা করতে গেলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে।

ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রতিপক্ষের জামাই জামাল (৩০) ও ছেলে আশিক (২৩) জোরপূর্বক গাছ কাটতে গেলে সেখানে বাধা দেয় সম্পত্তির মালিকের ছেলে নজরুল। নজরুল বাধা দেওয়ায় প্রথমে তাকে কুপিয়ে জখম করলে তার শুরচিৎকারে জমির মালিক কাজী খোরশেদ আলম আসলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে। পরে ঘটনাটি শুনে নুরপুর গ্রামের সর্দার হুমায়ুন কবির রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় তাদেরকে বাধা দিলে তাকেও কুপিয়ে জখম করে।

আব্দুর রশিদ জানান, এলাকার ভাড়াটে গোন্ডা মাদক ব্যবসায়ী জামালের নেতৃত্বে আশিক সহ আরো দুইজন জোরপূর্বক গাছ কাটতে আসলে বাধা দিলে তারা কুপিয়ে জখম করে। জামাল এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এবং চাঁদাবাজ। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে।

আহত হুমায়ন কবির সর্দার জানান, আমি আমার জমি দেখতে গিয়ে দেখি সেখানে ঝগড়া করছে দেখে তাদের দুই পক্ষকে থামানোর জন্য গেলে জামাল আমাকে কুপিয়ে জখম করে।

আহত নজরুল জানান, জামাল এলাকায় চাঁদাবাজি, মাদক ব্যবসায়ী ও নিজে মাদক সেবন করে। তাকে কেউ কিছু বলতে পারে না। সে এলাকায় মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মানুষকে জিম্মি করে টাকা আদায় করে। জ্বীনের বাদশা মাহাবুব কবিরাজের ভাড়াটে গুন্ডা হিসেবে কাজ করে এই জামাল।

৬নং জগন্নাথপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার শাহাজাহান সাজু জানান, যাদেরকে মেরেছে তারা মূলত জমির প্রকৃত মালিক। উচ্চ আদালত থেকে রায় পেয়েছে। তারপরেও জোরপূর্বক তাদের জায়গা দখলের চেষ্টা সহ গাছ কেটে নেওয়ার চেষ্টা করছে। আমি মনে করি তাদের সঠিক বিচার হওয়া উচিত।

চকবাজার ফাঁড়ীর ইনচার্জ মো: মারুফুর রহমান জানান, আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি। সেখানের পরিবেশ বর্তমানে শান্ত রয়েছে। ভোক্তভোগীরা থানায় অভিযোগ করলে অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।