কুমিল্লায় সহপাঠীদের ছুরিকাঘাতে দুই এসএসসি পরীক্ষার্থী আহত

ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে সহপাঠীদের ছুরিকাঘাতে দুই এসএসসি পরীক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছে। কুমিল্লার মহানগরীর ধর্মসাগরের পশ্চিম পাড়ে মঙ্গলবার দুপুরে দেড়টায় এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন- কুমিল্লা হাইস্কুলের মো. ইমতিয়াজ আহমেদ ও কুমিল্লা মডার্ণ স্কুলের শিক্ষার্থী মো. পিয়াল। কুমিল্লা হাইস্কুলের শিক্ষার্থী ও কুমিল্লা মডার্ণ স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে পূর্ব দ্বন্দ্বের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। আহত ইমতিয়াজ আহমেদ কুমিল্লা মহানগরীর কাপ্তান বাজার ব্যাপারী পুকুরপাড় এলাকার কাজী এমদাদুল হকের ছেলে। পিয়ালের বাসা কুমিল্লা মডার্ণ স্কুলে বিপরীত পাশে।

সহপাঠীরা জানায়, কুমিল্লা মডার্ণ স্কুলের ছাত্র মো. পিয়ালের সঙ্গে কুমিল্লা হাই স্কুলের ছাত্র নাহিদ, সাদি, ও অভয়ের সঙ্গে পূর্ব থেকে দ্বন্দ্ব চলছিল। মঙ্গলবার কুমিল্লা মডার্ণ স্কুল থেকে পরীক্ষা শেষে বাড়িতে যাওয়ার পথে ধর্মসাগরের পশ্চিম পাড়ে যাওয়ার পর কুমিল্লা মডার্ণ স্কুলের পিয়াল, হাই স্কুলের ইমতিয়াজের সঙ্গে ইসলামিয়া আদর্শের উচ্চ বিদ্যালয় ও কুমিল্লা হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে। সেখানে পিয়াল ও ইমতিয়াজ গুরুতর আহত হয়।

পিয়ালকে কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালে এবং ইমতিয়াজকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। ইমতিয়াজের হাতে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে পাঁচটি সেলাই দিলেও রক্ত বন্ধ না হওয়ার কারণে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। হাসপাতালে আহত ইমতিয়াজের পাশে থাকা সহপাঠীরা জানায়, ইসলামিয়া আদর্শের উচ্চ বিদ্যালয়ের নাহিদ, সাকি, কুমিল্লা হাইস্কুলের সাদি, অভয়, শাওন, কাউসার, আতিক, সবুজ, রকিব এবং মোঘলটুলি এলাকার অনিক এ হামলায় জড়িত। স্কুল ভিত্তিক এ ঘটনায় ইমতিয়াজকে তথ্য দাতা করে করে আহত করা হয়।

কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু ছালাম মিয়া জানান, আহত দুই জন এবং হামলাকারীরা দুই পক্ষই এসএসসি পরীক্ষার্থী। খবর পাওয়ার পর হাসপাতালে গিয়েছিলাম সেখানে গিয়ে আহত ছাত্রকে দেখতে পাইনি।  এখনো পর্যন্ত উক্ত ঘটনায় কেউ কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেনি। আমরা খোঁজ-খবর নিচ্ছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ