কুমিল্লায় ১৩ উপজেলার আটটিতে আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী

ডেস্ক রিপোর্টঃ আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন জমাদানের শেষ দিনে কুমিল্লার ১৩ উপজেলার চেয়ারম্যান পদে পাঁচ উপজেলায় এককপ্রার্থীসহ ৪০জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

এই উপজেলাগুলোতে ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে তিনজন একক প্রার্থীসহ ৪৮জন প্রার্থী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন একক প্রার্থীসহ ৩৮জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন।

এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে বুড়িচং, ব্রাহ্মণপাড়া, চান্দিনা, মেঘনা, হোমনা, তিতাস, মুরাদনগর ও বরুড়াসহ কুমিল্লার আট উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছে।

বিএনপির প্রার্থী রয়েছে মেঘনা ও মুরাদনগরে উপজেলায়।

সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, কুমিল্লার মেঘনা উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত উপজেলা সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ মিয়া রতন সিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক তাজুল ইসলাম, বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস ছালাম, ইসলামী ঐক্যজোটের সোহাইল হোসেন, বিএনপি নেতা রমিজ উদ্দিন লন্ডনী, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেচেন।

তিতাস থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা সাংগঠনিক সম্পাদক শাহিনুল ইসলাম সোহেল সিকদার, সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা পারভেজ হোসেন সরকার, স্বতন্ত্র হানিফ ভূইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন মনোনয়ন দাখিল করেন।

বরুড়া থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত এএন এম মাইনুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা সোহেল সামাদ, বাহাদুরুজ্জামানসহ আটজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী মনোনয়ন দাখিল করেন।

লাকসাম থেকে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হিসেবে অ্যাডভোকেট ইউনুস ভূইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থী রয়েছেন।

নাঙ্গলকোট থেকে চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী সামছুদ্দিন কালু, ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দেন। মনোহরগঞ্জ থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত একক প্রার্থী জাকির হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান পদেএকজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।

ব্রাহ্মণপাড়া থেকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত জাহাঙ্গীর খান চৌধুরী, দলের বিদ্রোহী আবু তাহের, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

চান্দিনা থেকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তপন বকসী ও মুজিবুর রহমান ভাইস, চেয়ারম্যান পদে দুইজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চারজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

মুরাদনগর থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড.আহসানুল আলম সরকার কিশোর, বিদ্রোহী সৈয়দ আব্দুল কাইয়ুম খসরু, বিএনপি নেতা গোলাম কিবরিয়া, নাজমা আক্তার, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ছয়জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান দুইজন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

দেবিদ্বার থেকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত জয়নাল আবেদীন ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে লোকমান হোসেনসহ দুইজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে এক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।

বুড়িচং থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত অ্যাডভোকেট আবুল হাসেম, আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী আখলাক হায়দার ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাতজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন।

চৌদ্দগ্রাম থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত একক প্রার্থী আব্দুস সোবহান ভূইয়া হাসান, ভাইস চেয়ারম্যান পদে বাহার উদ্দিন বাহার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাশেদা আক্তার মনোনয়নপত্র জমা দেন। হোমনা থেকে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত রেহেনা মজিদ, দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একেএম সিদ্দিকুর রহমান আবুল স্বতন্ত্র, সদস্য রোস্তম আলম স্বপন (বিদ্রোহী) ও সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শহিদুল্লাহ (বিদ্রোহী), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে অ্যাডভোকেট হালিমা, শাহিনুর আক্তার ও রিনা আক্তার মনোনয়নপত্র জমা দেন।

মনোনয়ন বাছাই শেষে ১৩মার্চ মনোনয়ন প্রত্যাহার ও প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে। আগামী ৩১মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্রঃ ঢাকাটাইমস

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ