কুমিল্লা ইপিজেডে কর্মরত এক নারী শ্রমিককে ধ’র্ষনের অভিযোগে ৪ জনের বিরুদ্ধে বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুই ধ’র্ষককে গ্রেফতার করেছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, জেলার লাকসাম উপজেলার নোয়াগাঁও এলাকায় এক নারী শ্রমিক (২০) কুমিল্লা ইপিজেডে কর্মরত ছিলো। ওই নারীর সাথে কোটবাড়ী এলাকার বিল্লাল হোসেন (১৯) নামে এক যুবকের মোবাইল ফোনে পরিচয় হয়। মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সূত্রধরে সোমবার সকালে কোটবাড়ী এলাকায় দেখা করে উভয়ে। কোটবাড়ী এলাকায় ঘুরাঘুরি শেষে দুপুর ১২ টায় নারীটিকে নিয়ে বিল্লাল হোসেন বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি রানীর বাংলো এলাকায় আসে।

রানীর বাংলো এলাকায় বিল্লাল হোসেনে সাথে আরো তিন যুবক একত্রিত হয়ে তাঁকে জো’রপূর্বক পাশের একটি ঝোপের মধ্যে নিয়ে ধ’র্ষন করে। তাঁর আ’ত্মচিৎকা’রে ধ’র্ষনকারীরা পালিয়ে গেলে স্থানীয় লোকজন ধ’র্ষিতাকে উদ্ধার করে পুলিশে খবর দেয়।

এ ঘটনায় রাতেই ধ’র্ষিতা বাদী হয়ে ৪ জনের নামে বুড়িচং থানায় একটি মা’মলা দায়ের করে। মামলার প্রেক্ষিতে বুড়িচং থানাধীন দেবপুর পুলিশ ফাঁড়ীর এস আই নন্দন চন্দ্র সরকার অভিযান চালিয়ে মামলার ৩ ও ৪ নং আসামীকে আ’টক করে। আ’টককৃতরা হলো বুড়িচং উপজেলার বাগিলরা গ্রামের মৃ’ত আবুল হাশেমের ছেলে মোঃ খোকন মিয়া (২০) ও চান্দিনা উপজেলার রানীরচর গ্রামের মোঃ মহসিন মিয়ার ছেলে মোঃ আনিস (২০)।

পুলিশ আ’টককৃত আসামীদের মঙ্গলবার কুমিল্লা আদালতে প্রেরণ করেছে।