ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায় ১০ টাকা দেওয়ার লোভ দেখিয়ে পাঁচ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন

পরে আহত অবস্থায় ওই শিশুকে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. মাহবুবা আলম জানান, শিশুটির শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হওয়ায় আশঙ্কাজনক অবস্থায় দেখে দ্রুত কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

শিশুটির বাবা মুঠোফোনে বলেন, ‘মেয়েকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এসেছি। প্রচুর রক্তক্ষরণ হওয়ায় রক্ত লাগবে। রক্তের জন্য ঘুরছি।’ এ কথা বলেই তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন।

শিশুটির মা বলেন, ‘আমার মেয়ের এখনো স্কুলে ভর্তি হওয়ার সময় হয়নি। আমি পাশের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করি। মেয়েকে ঘরে রেখে কাজে যাই। কে বা কারা মেয়েকে টাকা দেওয়ার লোভ দেখিয়ে নির্জনস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে রাস্তায় ফেলে যায়।’

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. তিনা আক্তার মুঠোফোনে বলেন, ‘শিশুটির শরীর থেকে প্রচুর রক্ষক্ষরণ হয়েছে। শিশুটিকে আমরা চিকিৎসা দিচ্ছি তবে এখনো কিছু বলা যাচ্ছে না।’

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘পাঁচ বছরের শিশু ধর্ষণের খবর শুনে সাথে সাথে পুলিশ পাঠিয়েছি। শিশুটি অপরাধীকে সনাক্ত করতে না পারায় আমরা সম্ভাব্য স্থানে অভিযান অব্যাহত রেখিছি।’

এ বিষয়ে দেবিদ্বার সার্কেল সিনিয়র পুলিশ সুপার শেখ মোহাম্মদ সেলিম বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলসহ বিভিন্ন সন্দেহমূলক জায়গায় অভিযান চালিয়েছি। আশা করি খুব দ্রুত অপরাধীকে আইনের আওয়াতায় নিয়ে আসতে পারব।’

সূত্রঃ আমাদের সময়

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: