কুমিল্লা শাসনগাছা ফ্লাইওভার, উদ্বোধন ফেব্রুয়ারিতে

ডেস্ক রিপোর্টঃ বহুল প্রতীক্ষিত কুমিল্লার প্রবেশমুখে ‘শাসনগাছা ফাইওভার’ (রেলওয়ে ওভারপাস) উদ্বোধন হচ্ছে ফেব্রুয়ারিতে। নির্মাণ কাজ শেষে এখন চলছে এর কার্পেটিং ও রঙের কাজ। ৯৪ কোটি ৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ৬৩১.৫ মিটার দৈর্ঘ ও ৮.৯ মিটার প্রস্থের এ ফাইওভারটি উদ্বোধন হলে ভোগান্তি কমবে পথচারী ও নগরবাসীর। চলতি বছরের জুন মাসে এ প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ায় চারমাস পূর্বেই ফেব্রুয়ারি মাসে উদ্বোধন করা হচ্ছে এ ফাইওভারটি।

এ বিষয়ে কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার জানিয়েছেন, ফেব্রুয়ারি মাসের যেকোনো সময় বহুল প্রতীক্ষিত কুমিল্লার শাসনগাছা ফাইওভারটি উদ্বোধন করা হবে। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এটি উদ্বোধন করতে পারেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের গতির সাথে কুমিল্লাও এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে এমপি বাহার বলেন, শাসনগাছা ফাইওভার করার জন্য কিন্তু আমার কাছে জনগণের দাবি ছিলো না। এটা নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিও ছিলো না। আমি ২০০৮ সালে এমপি হওয়ার পর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টারের কাছে চিঠি লিখেছিলাম। উত্তরে তিনি জানালেন সেখান দিয়ে প্রতিদিন ৫২টি ট্রেন চলা চল করে। আমি হিসেব করে দেখেছি, ৫২০ মিনিট কুমিল্লার মানুষ এখানে থমকে থাকে। কিন্তু তা তো হতে পারে না। আমি পরিকল্পনা গ্রহণ করলাম। সে পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই ফাইওভার নির্মাণের উদ্যোগ নেই। জেলা শহরে প্রথম ফাইওভারের উদ্যোক্তা আমি। এর আগে কোনো জেলা শহরে ফাইওভার হয়নি। ফাইওভারের নিচের জায়গাটির বিষয়ে আমি কয়েক দফা বৈঠক করেছি। নিচের রাস্তাটি সংস্কার করা হবে। আলেখারচর থেকে কুমিল্লা পর্যন্ত বাইপাস করে দেবো। টেন্ডার হয়ে গেছে। কাজ শেষ হলে আর ভোগান্তি থাকবে না। ফাইভারটি ফেব্রুয়ারিতে উদ্বোধন করতে পারবো। মানুষের সময় বাঁচবে। ভোগান্তি থেকে মুক্তি পাবে।

কুমিল্লায় আমি কয়েকটি বিকল্প সড়ক তৈরি করেছি। যাতে শহরে প্রবেশ ও বের হতে বিকল্প রাস্তাগুলো ব্যবহার করতে পারবে। তাহলে শহর যানজটমুক্ত হবে। জাগুরজুলি সড়ক করা হয়েছে। সাড়ে ৪ কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে। সেখানে দুটি কালভার্ট হচ্ছে। আমতলী থেকে টিক্কার পর্যন্ত গোমতীর উপর রাস্তা হচ্ছে। এর বাইরে আরেকটি গেটওয়ে আছে। কোটবাড়ি সড়কটি কালির বাজার হয়ে বরুড়া সীমানা পর্যন্ত যাবে। কাজগুলোর টেন্ডার জুনে হবে। এর ফলাফল জনগণ ভোগ করবে। আশা করছি সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী শাসনগাছা ফাইওভারটি উদ্বোধন হবে।

এমপি বাহার বলেন, সরকারের উন্নয়ন গতির সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে কুমিল্লা। আর কুমিল্লা এগুলেই এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

জানা গেছে,  শাসনগাছা রেল ক্রসিংয়ের যানজট নিরসনের লক্ষ্যে ২০১৫ সালের মে মাস থেকে একটি ফাইওভার নির্মাণের কাজ শুরু হয়। ব্যস্ততম এ সড়কের রেললাইনটি দিয়ে প্রতিদিন ৫২টি ট্রেন চলাচল করে। ফলে দীর্ঘক্ষণ যানজটের দুর্ভোগ পোহাতে হতো পথচারী ও নগরবাসীকে। ফাইওভারটির নির্মাণকাজ চলাকালে সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়েন সেখানকার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ। অবশেষে তাদের সে ভোগান্তির অবসান হচ্ছে। ফলে হাসি ফুটেছে তাদের মুখে।

কুমিল্লা শহরে প্রবেশের প্রধান সড়কটি দিয়ে আশপাশের উপজেলা ছাড়াও ঢাকা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে লাখো মানুষের যাতায়াত। দীর্ঘদিনের ভোগান্তি ও দুর্ঘটনা এড়িয়ে দ্রুত সময়ে যাতায়াতে ফাইওভারটি ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন কুমিল্লাবাসী।

রোডস্ এন্ড হাইওয়ে ডিপার্টমেন্ট, কুমিল্লার উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. রেজা-ই-রাব্বি বলেন, চলতি বছরের জুনে প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিলো। কিন্তু দ্রুত গতিতে চলা নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ায় মেয়াদের পূর্বেই তা উদ্বোধন করা যাচ্ছে। দূর-দূরান্ত থেকে যেসকল যাত্রীরা কুমিল্লায় আসেন, ওভার পাসটি উদ্বোধন হলে তাদের দুর্ভোগ কমবে।