কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে কাঁকড়ী নদীর বাধ ভাঙ্গলেও বন্যার আতঙ্ক নেই

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ শনিবার সন্ধ্যায় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মিয়াবাজার এলাকায় কাকড়ী নদীর বাধ ভেঙ্গে পানিবন্দী হয়ে পড়ে অন্তত ২০টি গ্রামের মানুষ। কিন্তু রাত শেষ হওয়ার আগেই পানি নেমে যায় নদীতে। ফলে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতির আতঙ্ক কেটে গেছে নদীপাড়ের মানুষের।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা খলিলুর রহমান বলেন, পানি সরে যাচ্ছে, বন্যার আশংকা নেই। রাত থেকে জোয়ারের পানি ধীরে ধীরে নামতে শুরু করেছে।
স্থানীয়রা জানায়, একই সাথে গতকাল রাত থেকে বৃষ্টি না হওয়ায় নদীর পানির প্রবাহও কমে গেছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে কাকড়ি নদীর বাঁধের ঘাসিগ্রামের অংশে প্রায় ৩০ ফুট ভেঙ্গে গেছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভাঙ্গন এলাকায় নদী পাড়ে বেশ কিছু গাছপালার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও ঐ এলাকার রোপা আমন ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কিছু পুকুরের মাছ পানির জোয়ারে বেরিয়ে গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গতকাল বিকাল ৫ টায় ঐ এলাকার বাঁধে ফাটল দেখা দিলে গ্রামবাসি মসজিদের মাইকে ঘটনাটি জানিয়ে সবাইকে জড়ো হতে বলে। এসময় তারা নিজ উদ্যোগে বস্তা ভর্তি মাটি ফেলে ভাঙ্গন রোধে চেষ্ঠা করে। কিন্তু এতেও শেষ রক্ষা হয়নি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ