করোনা পরীক্ষায় ল্যাব ঠিকঠাক কাজ করছে কীনা সেটি যাচাই করতে অদ্ভূত একটি উপায় বেছে নেন তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট।

বিজ্ঞাপন

ল্যাবে পাঠিয়ে দেন বিভিন্ন ফলমূল ও পশুপাখির নমুনা, এতে দেখা গেছে পেঁপে, ছাগলসহ অনেক কিছুর করোনা পজিটিভ এসেছে। এই ঘটনায় তাঞ্জানিয়ার ন্যাশনাল হেলথ ল্যাবরেটরির পরিচালক ও কোয়ালিটি ম্যানেজারকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বিবিসি জানায়, তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট জন মাগুফুলি ওই ল্যাবরেটরিতে করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য ব্যবহৃত কিটের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এর পরদিনই শীর্ষ ওই কর্মকর্তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হল।

সোমবার সরাসরি সম্প্রচারিত এক ভাষণে মাগুফুলি জানান, কিছু প্রাণী ও ফলের নমুনা সংগ্রহ করে সেগুলো পরীক্ষা করতে করোনাভাইরাস ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়। সেগুলোতে মানুষের নাম ও বয়স লিখে দেয়া হয়েছিল। দেখা যায় এসবের পরীক্ষায় কিছু নেগেটিভ ও কিছু পজিটিভ এসেছে।

তিনি বলেন, গাড়ির তেলের নমুনায় জাবির হামজা, বয়স-৩০ (পুরুষ) লেখা হয়েছিল, ফল এসেছে নেগেটিভ। আমরা একটি কাঁঠালের নমুনা পাঠিয়েছি সারা সামওয়েলি, ৪৫ বছর বয়সী নারী- এমনটি লিখে, এই পরীক্ষার ফল অমীমাংসিত ছিল। এলিজাবেথ অ্যান, বয়স ২৬ বছর লিখে পেঁপের নমুনা পাঠানো হল, তখন পেঁপের করোনাভাইরাস ধরা পড়ল।”

তাঞ্জানিয়ার প্রেসিডেন্ট আরও জানান, একটি পাখি ও একটি ছাগলের নমুনা পরীক্ষাতেও করোনা পজিটিভি এসেছে কিন্তু খরগোশের বেলায় কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারেনি ল্যাব।

এদিকে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এ ঘটনায় ১০ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। ল্যাবরেটরিটি কীভাবে পরিচালিত হচ্ছে তা তদন্ত করে ১৩ মের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবে কমিটি। তবে ল্যাবরেটরিটিতে করোনা পরীক্ষা অব্যাহত থাকবে।

এদিকে তাঞ্জানিয়ায় এখন পর্যন্ত ৪৮০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬৭ জন। তবে মারা গেছেন ১৭ জন।

সূত্রঃ দেশ রূপান্তর