মাসকয়েক আগে কারাগারের কাছেই একটি বাড়িতে ভাড়া নেন তিনি। কেউ তখন কিছুই আন্দাজ করতে পারেনি। সারাদিন ঘরেই বসে থাকতেন তিনি। কারও সঙ্গে মিশতেন না। কারও সঙ্গে সেভাবে কথাও বলতেন না। নিজের মতোই থাকতেন। তলে তলে তিনি যে এমন একটা কাণ্ড ঘটাচ্ছেন তা কেউ আন্দাজ করতে পারেনি।

এ যেন সিনেমার দৃশ্যকে হার মানিয়ে দিল। যাবজ্জীবন কারাদন্ডপ্রাপ্ত ছেলে জেল থেকে পালানোর জন্য ৩৫ ফুট সুড়ঙ্গ খুঁড়লেন ৫১ বছরের এক মা। এ ঘটনা ইউক্রেনের। খবর ডেইলি মেইল।

জানা যায়, ছেলেকে জেল থেকে পালানোর পথ তৈরি করতে কারাগারের কাছে একটি বাড়ি ভাড়া নেয় এই মা। এরপর ৩৫ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া সুরঙ্গ খুঁড়ে ফেললেন তিনি। রাতে সবাই ঘুমিয়ে পড়লে সাইলেন্সর লাগানো ইলেকট্রিক স্কুটার দিয়ে মাটি খোঁড়ার কাজ করতেন তিনি। রাতেই সেই মাটি সরিয়ে ফেলতেন। দিনের বেলা ঘরেই থাকতেন। আশে পাশের লোক নতুন প্রতিবেশীর সঙ্গে আলাপ পরিচয় করতেন না।

এভাবে তিন সপ্তাহ ধরে মাটি খুঁড়ে জেলের মাঠ পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল তার সুরঙ্গ। তবে স্বপ্ন ভঙ্গ হল এই মায়ের। পুলিশের কাছে ধরা পড়ে যান ইউক্রেনের এই নারী। তাকেও গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তবে তিনি ছেলের জন্য যা করেছেন তা জেনে অনেকেই অবাক। একেবারে একার চেষ্টায় এত দীর্ঘ সুড়ঙ্গ খোঁড়া কিন্তু চাট্টিখানি কথা নয়। কিন্তু সন্তানের জন্য মায়েরা তো হামেশাই অসাধ্য সাধন করে। এ আর নতুন কী!

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: