দরপত্র ছাড়াই কাটা হচ্ছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাছ

মো. জাকির হোসেনঃ বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের লাখ লাখ টাকার গাছ কাটছে কোন দরপত্র ছাড়াই। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বললেন,গাছ কেটে সেগুলো লাকড়ি করে বিক্রি করে সরকারী কোষাগাওে টাকা জমা দেওয়া হবে।

স্থানীয় দায়িত্বশীল সুত্রে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও সীমানা প্রাচীরের ভিতর থাকা ১০/১২ টি মেহগনি গাছ গত ৪ জুন থেকে কাটা শুরু হয়। এরই মাঝে প্রায় সবগুলো গাছ গত দু’দিনে কেটে ফেলা হয়েছে। স্থানীয় সুত্র মতে মূল্যবান মেহগনি গাছগুলোর মূল্য কমপক্ষে ৩/৪ লাখ টাকা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দায়িত্বশীল সুত্র মতে সরকারী প্রতিষ্ঠানের কোন গাছ কাটতে হলে আগে দরপত্র বা টেন্ডার আহবান করতে হয়। কিন্তু বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও ভিতর থাকা এসকল গাছগুলো কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই কাটা হচ্ছে।

বিষয়টি জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রত্না দাস সাংবাদিকদের বলেন,গাছগুলো কেটে লাকড়ি করে বিক্রি শেষে টাকা সরকারী কোষাগারে জমা দেওয়া হবে। মূল্যবান এই গাছ থেকে কাঠ করা হলেও কেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা লাকড়ি করে বিক্রি করবেন সেটা বোধগম্য হচ্ছেনা। অপরদিকে তিনি আরো বলেন যথাযথ ভাবে নিয়ম অনুসরন করে গাছ কাটা হয়েছে। গাছ কাটার স্থলে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস নির্মান করা হবে।তাই দ্রুত গাছ গুলো কাটতে হলো,এখানে কোন অনিয়ম দূর্নীতি হয়নি ।পরবর্তীতে টেন্ডার দেওয়া হবে।

এদিকে কুমিল্লা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ নুরুল কবির বলেন,গাছ কাটতে হলে লিখিতভাবে বনবিভাগের কাছে অনুমতি নিতে হয়। এক্ষেত্রে কোন আবেদনই করেনি সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ