মো. ওমর ফারুকঃ কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বসত বাড়ীর জায়গা দখলে বাঁধা দেয়ায় ছেলে জাকের হোসেন ও তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীর হামলায় পিতাসহ ৩ জন আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার উপজেলার জোড্ডা পূর্ব ইউনিয়নের পানকরা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। আহতরা হলেন, পিতা সিদ্দিকুর রহমান (৯০), সৎ মা ছেনোয়ারা বেগম (৬০) ও ভাবি শেফালি বেগম (৪৫)। স্থানীয়রা আহতদেরকে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে জাকের হোসেন তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী বাহিনী জাহাঙ্গীর আলম, আলা উদ্দিন, বেলাল হোসেনসহ ১৫-২০ জনের একটি গ্রুপ দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে তার পিতা সিদ্দিকুর রহমানের বসত বাড়ীর জায়গা দখলের চেষ্টা করে। এতে পিতা সিদ্দিকুর রহমান বাঁধা দেয়ায় তাকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে। এ সময় তাকে বাঁচাতে জাকেরের সৎ মা ছেনোয়ারা বেগম ও ভাবি শেফালি বেগম এগিয়ে আসলে তারাও সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয়। এ সময় সন্ত্রাসীরা পুরো গ্রামে ত্রাসের সৃষ্টি করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে জাকেরের ভাই স্থানীয় সোনালি ব্যাংকের অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানান। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় সিদ্দিকুর রহমানের পক্ষে তার ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানায়।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লামইয়া সাইফুল বলেন, সোনালি ব্যাংকের ওই কর্মকর্তা আমাকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিষয়টি জানালে, আমি তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠাই এবং বাড়ীর জায়গার বিষয় আমার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ রয়েছে।