মো. ওমর ফারুকঃ বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতির নাঙ্গলকোট উপজেলা অনুমোদিত কমিটির আত্মপ্রকাশ উপলক্ষ্যে এক সংবাদ সম্মেলন গত বৃহষ্পতিবার উপজেলা পরিষদ শিশু নিকেতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। এসময় কমিটির নাম ঘোষণা করেন-বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নাঙ্গলকোট উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও জোড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দিন মজুমদার।

তিনি বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ শামছুদ্দীন স্বাক্ষরিত ও অনুমোদিত নাঙ্গলকোট উপজেলা সহকারি শিক্ষক সমিতির সভাপতি হিসেবে দৌলখাঁড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. রমজান আলী, সাধারন সম্পাদক মক্রবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. শফিকুর রহমানকে ( শফিক রেজা) ও সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দক্ষিণ শাকতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক জাহিদুল ইসলাম মিতুলের নামসহ ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির নাম ঘোষণা করেন।

>>আরো পড়ুনঃ  বুড়িচংয়ে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীরা প্রকাশ্যে

এসময় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নাঙ্গলকোট উপজেলা সভাপতি ও নাঙ্গলকোট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক টুয়া সুহৃদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইব্রাহিম মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক পদুয়ারপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মো. সাহাব উদ্দিন, নব গঠিত সহকারি শিক্ষক সমিতি নাঙ্গলকোট উপজেলা সভাপতি ও দৌলখাঁড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রমজান আলী, সহ-সভাপতি সোন্দাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মো. শাহআলম, সাধারন সম্পাদক মক্রবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক শফিকুর রহমান (শফিক রেজা) প্রমুখ।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নাঙ্গলকোট উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও নাঙ্গলকোট উপজেলা বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারি শিক্ষক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা নিজাম উদ্দিন মজুমদার তার বক্তব্যে বলেন, আমরা শিক্ষকদের বিভাজন চাই না। আমরা কারো প্রতিপক্ষ নই। আমরা শিক্ষকদের কল্যাণে কাজ করবো। বর্তমান কমিটিকে যোগ্যতার স্বাক্ষর রাখতে হবে। আমরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উন্নয়নে এবং কোমলমতি শিশুদেরকে নিজেদের সন্তান মনে করে তাদের লেখাপড়ার মান উন্নয়নে আমরা কাজ করবো। এতে আমাদের জীবন স্বার্থক হবে।
বক্তরা তাদের বক্তব্যে সহকারি শিক্ষকদের ৫দফা দাবী তুলে ধরেন। দাবিগুলো হচ্ছে ১. প্রধান শিক্ষকদের পরের ধাপে সহকারি শিক্ষকদের বেতন স্কেল নির্ধারণ, ২.সহকারি শিক্ষক পদকে এন্ট্রি পদ ধরে শতভাগ বিভাগীয় পদোন্নতি প্রদান ৩. ডিপার্টমেন্টের অন্যান্য কর্মচারীর ন্যায় প্রথমিক শিক্ষকদেরও নন ভেকেশনাল ডিপার্টমেন্ট হিসেবে ঘোষণা ৪. বিদ্যালয় সময়সূচী সকাল ১০ ঘটিকা থেকে বিকেল ৩ ঘটিকা পর্যন্ত করা ৫. শিক্ষক নির্যাতন ও হয়রানি বন্ধে শিক্ষক সুরক্ষা আইন করা।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ