নারায়ণগঞ্জে মা’দক সেবনের টাকা না দেওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা ও আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদীন টুলু ও তার স্ত্রীকে মা’রধর করেছেন তাদেরই মাদকাসক্ত ছেলে ফাহাদ। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত পুত্র ফাহাদকে একটি চায়নিজ কুড়ালসহ আটক করেছে।

সোমবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে শহরের খানপুর ব্রাঞ্চ রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। অন্যদিকে আহত মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন টুলু ও তার স্ত্রী নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

আহত আওয়ামী লীগ নেতা জয়নাল আবেদীন টুলু নারায়ণগঞ্জ ১২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও শহরের খানপুর মুক্তিযুদ্ধ ইউনিট কমান্ডের কমান্ডার এবং সাবেক কাউন্সিলর।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ফাহাদ একজন মাদকাসক্ত। সে প্রায় সময় নেশার টাকার জন্য তার মা-বাবাকে মারধর করতো। লোকলজ্জার ভয়ে এতদিন বিষয়টি কাউকেই তারা জানাননি। তবে সোমবার দুপুরের দিকে ফাহাদ মাদক সেবনের জন্য তার বাবা-মায়ের কাছে টাকা চায়।

এতে ব্যর্থ হয়ে সে তার মা ও বাবাকে বেধড়ক মারধর করে। পরে তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা পুলিশে খবর দেন। পরে জয়নাল আবেদীন টুলু ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করে খানপুরে ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি চায়নিজ কুড়ালসহ ফাহাদকে আটক করে।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ‘অভিযুক্ত ফাহাদকে ঘটনাস্থল থেকেই আটক করে থানায় নিয়ে আনা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগের বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত নেয়নি। তারা ফাহাদকে শোধনাগার (রিহ্যাব) দেওয়ারও চিন্তা করছে বলে জেনেছি। আপাতত সে আমাদের কাছে আছে। পরিবারের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: