দেশের জনপ্রিয় খাবার ফুচকা সংগ্রহ করে তাতে পরীক্ষা করে মলের জীবাণু পাওয়া গেছে। বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে শিক্ষার্থীদের সচেতনতামূলক কর্মশালায় এমন তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. মাহবুব কবীর (অতিরিক্ত সচিব)।

তিনি বলেন, খাদ্য সম্পর্কে আমাদের নানা অজ্ঞতার কারণে আমরা না জেনেই অনিরাপদ খাদ্য গ্রহণ করছি এতে পেটের পীড়াসহ নানা রকম জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছি। দেশের জনপ্রিয় খাবার ফুচকা বিভিন্ন জায়গা থেকে নিয়ে একাধিক পরীক্ষায় যে জীবাণু পাওয়া গেছে তার উপাদান মলের জীবাণুর অনুরুপ।

তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন যায়গায় মুরগী জবাইয়ের পর যান্ত্রিকভাবে পরিষ্কার করা হয় এবং একই পানিতে চুবানো হয়, কিন্তু এটি খুবই অনিরাপদ, যদি কোন একটি মুরগীতে বার্ড ফ্লু বা অন্য কোন ভাইরাস থাকে তাহলে তা ঐ যন্ত্রে প্রক্রীয়া হওয়া সকল মুরগীর মাংসে ছড়িয়ে যাবে। বিভিন্ন হোটেল রেস্তোরাঁর একই সাবান ও গামছা একাধিক জনের ব্যবহার অনিরাপদ উল্লেখ করে মাহবুব কবীর বলেন, এর মাধ্যমেও জীবাণু একজন থেকে অন্যজনের দেহে প্রবেশ করে। এর পরিবর্তে লিকুইড সোপ ও ন্যাপকিন ব্যবহার করার পরামর্শ দেন তিনি। এছাড়াও তিনি পরীষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে, ফলমূল খাবার আগে ধুয়ে খেতে এবং খাবারের আগে ও টয়লেট ব্যবহারের পরে হাত ভালোভাবে ধুয়ে ফেলার পরামর্শ দেন।

মাহবুব কবীর বলেন, সারাদেশের মানুষের কাছে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। তিনি জানান, ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে খুব শিগগিরই রংপুর অঞ্চলে ভেজাল ও অস্বাস্থ্যকর খাবারের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

বেরোবি বহিরাঙ্গন কার্যক্রমের পরিচালক প্রফেসর ড. নাজমুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালাটির সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. সামসুল হক।

এতে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সদস্য প্রফেসর ড. আব্দুল আলীম, বেরোবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান প্রধান, রেজিস্ট্রার কর্নেল আবু হেনা মুস্তাফা কামাল এএফডব্লিউসি, পিএসসি (অব.) এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু মোন্নাফ আল কিবরিয়া তুষার প্রমুখ।