কুমিল্লায় বাসে ধর্ষণের শিকার তরুণীর পাশে দাড়ালেন কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম রনি ও জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহ্সিন বাহার সূচনা। বুধবার বিকেলে নির্যাতিত তরুণীর মা’য়ের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেন। পাশাপাশি ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির বিষয়ে আইনজীবি নিয়োগ করেন তারা।

নির্যাতিত তরুণীর মা জানান, অর্থনৈতিক দৈন্যতার কারনে তার ছোট মেয়ে চাকরীর জন্য ঢাকায় যায়। গত ১৭ সেপ্টেম্বর কুমিল্লায় ফেরার পথে তিসা প্লাস পরিবহণের একটি বাসে চালক হেলপারসহ তিন মিলে তরুনীকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় তরুনীর মা বাদি হয়ে সদর দক্ষিন থানায় মামলা দায়ের করেন। তবে পারিবারিক দৈন্যতার কারনে মামলা চালিয়ে যাওয়ার নিয়ে চিন্তিত ছিলেন তিনি।

বিষয়টি জেনে কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম রনি ও জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহসিন বাহার সূচনা তাদের পক্ষ থেকে ওই তরুণীর মা’য়ের হাতে নগদ অর্থ তুলে দেন। এছাড়াও আগামী এক বছর প্রতি মাসে ওই তরুণীর পরিবারে নগদ অর্থ সহয়তা দেয়া হবে। পাশাপাশি আটক ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতে তারা আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছেন। নির্যাতিত তরুণীর পক্ষে আইনজীবীরা লড়ে যাবেন।

কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম রনি বলেন, আমরা নির্যাতিত তরুণীর পাশে দাড়িয়েছি। এমন ন্যক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। ধর্ষকের কোন দল নেই। তারা যেই হউক তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। আমি আশা করছি ভবিষ্যতে যেন এই কুমিল্লায় এমন কোন ঘটনা না ঘটে সে জন্য স্ব স্ব অবস্থান থেকে সবাইকে সোচ্চার হতে হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: