ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলা সাদকপুর গ্রামের বাহরাইন প্রবাসী বিল্লাল হোসেন (৩৫) নামে এক যুবক মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে (বাহরাইন সময় সাড়ে ১২টা) বাহরাইনের আওয়ালি নামক এলাকার একটি ৭ তলা ভবনের ছাদ থেকে ফেলে হ’ত্যার অভিযোগে ৩ বাংলাদেশী নাগরিককে আ’টক করেছে বাইরাইন পুলিশ।

নিহত প্রবাসী বিল্লাল হোসেনের চাচাত ভাই অবঃ সেনা সার্জেন্ট মোঃ মোস্তফা কামাল এবং পরিবারের বরাতে জানা যায়, বিল্লাল দেশে পরিবারের সকল দেনা পাওনা পরিশোধ করে গত ৪/৫ বছরে প্রায় ১০ -১২ লক্ষ টাকা জমা করে নিজের কাছে। সম্প্রতি দেশে ছুটিতে এসে বিয়ে করার কথা ছিলো তার, এজন্য প্রায় ১৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও বিয়ের সকল মালামাল ক্রয় করে লাগেজে ভরে রেখেছে বলেও পরিবারের সকলকে জানায়।

বাহরাইনের পিসিসি নামক একটি কোং এর প্রায় অর্ধশতাধিক কর্মীর পোরম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করতো বিল্লাল। আগামী ১৪/১৫ ই ডিসেম্বর ছুটিতে বাড়িতে আসার কথা ছিলো তার। কিন্তু হঠাৎ মঙ্গলবার দুপুরেই সহকর্মী প্রবাসীদের একজন ইমুতে ফোন করে জানায় বিল্লাল আত্মহ’ত্যা করেছে। এসব কথা বিশ্বাস না করলেও পরে ফেসবুকে পোষ্ট দেখে সেখানে এম্বাসাডরের সাথে কথা বলে বিল্লালের পরিবারের লোকজন। তারা তাদের জানায়, কোনভাবেই বিল্লাল আত্মহ’ত্যা করতে পারে না। সোমবার (২ ডিসেম্বর) বিকালে এবং গতকাল (মঙ্গলবার) সকালে হাসিখুশিভাবে কথা বলেছে সে সবার সাথে ফোনে।

এদিকে বাহরাইনে বিল্লাল হোসেনের প্রবাসী সহকর্মীদের বরাতে জানা যায়, ঘটনার পর খবর পেয়ে স্থানীয় পুলিশ ও বাংলাদেশ এম্বাসীর লোকজন এসে লা’শ উদ্ধার করে সালমানীয়া হা’সপাতালের ম’র্গে প্রেরণ করে। প্রাথমিক তথ্যে আত্মহ’ত্যা বলে প্রচার করা হলেও বিষয়টি নিয়ে স’ন্দেহ হয় বাহরাইনের স্থানীয় প্রশাসনের। পরে বিভিন্ন বিষয় খতিয়ে দেখার পর আত্মহ’ত্যা নয় বরং একটি পরিকল্পিত হ’ত্যাকান্ড বলেই স’ন্দেহ হয় তাদের। আর এই সন্দেহের ভিত্তিতে নিহত বিল্লাল হোসেনের কোম্পানিতে চাকুরী করা তিন প্রবাসী বাংলাদেশীকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের নাম সহ বিস্তারিত এখনো জানা যায় নি।