নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রাম থেকে তিন সন্তারের জননী মানষিক প্রতিবন্ধি এক মধ্য বয়সী মহিলার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে দেবপুর ফাঁড়ী পুলিশ।

বিজ্ঞাপন

নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানান, উপজেলার ভারেল্লা উত্তর ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত সুলতান আহাম্মদের মেয়ে মোঃ কুহিনুর আক্তার(৩২)’কে উপজেলার বাকশীমূল ইউনিয়নের ছয়গ্রাম এলাকায় বিয়ে দেয়। কুহিনুর আক্তারের স্বামী হাবিবুর রহমান ঢাকায় চাকুরীরত আছে। বিয়ের পর তাঁদের ঘরে এক মেয়ে ও দুটি ছেলে জন্ম নেয়। বেশ কিছুদিন যাবত কুহিনুর আক্তার মানষিক রোগে ভূগছিলো বলে বাবার বাড়ীতে থেকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহন করে আসছিলো। প্রতিদিনের ন্যায় রোববার রাতে কুহিনুর আক্তার তাঁর বাবার বাড়ীতে পরিবারের সদস্যদের সাথে ঘুমিয়ে পরে। পরদিন অর্থাৎ সোমবার সকালে প্রতিবেশী আমির হোসেন মাটি কটার কাজে যাওয়ার সময় ঘরের সামনে বড়ই গাছে ঝুলন্ত লাশ দেখে চিৎকার করে। এতে বাড়ীর লোকজন একত্রিত হয়ে বুড়িচং থানাধিন দেবপুর ফাঁড়ী পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে দেবপুর পুলিশ ফাঁড়ীর এস আই শাহিন কাদীর ঘটনাস্থলে পৌছে নিহতের লাশ উদ্ধার করে।

এস আই শাহিন কাদীর জানান, লোক মাধ্যমে খবর পেয়ে রামচন্দ্রপুর এলাকা থেকে মধ্য বয়সী এক মহিলার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশের সুরতহাল রিপোট তৈরী করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্টেরপর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। #