মো. জাকির হোসেনঃ কৃষক সামসু মিয়া গরু পালণ করে স্থানীয় বাজারে দুধ বিক্রয় করে স্ত্রী সন্তানদের নিয়ে জীবন যাপন করে আসতো। তাঁর এই শেষ সম্বল গরুগুলির মধ্যে একটি গরু বাস চাপায় মারা গেলো। এতে চূর্ন হয়ে গেল কৃষক সামসু মিয়ার স্বপ্ন।

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের কোরপাই গ্রামের ফজর আলীর পুত্র সামসু মিয়া গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাঁর একটি গরুকে গোসাল কারানোর জন্য গোয়াল ঘর থেকে বাহির করে। গরুটি ঘর থেকে বের হয়েই দৌড়ে বাড়ী সংলগ্ন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে উঠে যায়। পিছনে দৌড়াতে থাকে সামসু মিয়া। এসময় ঢাকা থেকে লক্ষীপুরগামী জননী পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস (ঢাকা মেট্টো-ব ১৪-১৫৯২) গরুটিকে চাপা দেয়। এতে গরুটি বাসের সামনের অংশে আটকে যায়। এসময় বাস চালক বাসটিকে না থামিয়ে দ্রুতগাতীতে চালিয়ে যেতে থাকে। প্রায় আধা কিঃমিঃ দূরে গিয়ে গরুটি বাসের চাকায় আটকে যায়, ফলে গরুটির নির্মম মৃত্যু হয়। এসময় চালক বাস ফেলে পালিয়ে যায়।

খবর পেয়ে ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে বাসের নিচে আাটকে যাওয়া গরুটিকে স্থানীয়দের সহযোগীতায় বের করে। শেষ সম্বল গরুটির মৃত্যু দেখে রাস্তাই অজ্ঞান হয়ে যায় কৃষক সামসু মিয়া। পরে স্থানীয় লোকজন বাস কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে অসহায় কৃষক সামসু মিয়ার সহযোগীতা করার আস্বাস প্রদান করেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: