আবরার হত্যার পর একে একে বেরিয়ে আসছে বুয়েটে র‍্যা গের ভয়াবহ সব গল্প। পড়লে আপনি ভাববেন এ বর্ণনা কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ের নয়, এ যেন কোনো কনসে ন্ট্রেশন ক্যাম্পের কথা বলা হচ্ছে। অর্ণব নামে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের এক শিক্ষার্থী শোনাচ্ছিলেন তার সাথে ঘটে যাওয়া নির্যা তনের গল্প, ‘হলের প্রথমদিকে হলের পপুলার দুই ভাই পালা করে করে রুমে নিয়ে গিয়ে র‍্যা গ দিচ্ছিল। এক পর্যায়ে আমাকে আর অরুপকে রুমে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আমাকে দিয়ে অরুপকে এবং অরুপকে দিয়ে আমাকে মারা হয়। আমাদের ভাইদের সাথে জোর করে পর্নো দেখানো হয় এবং আইটেম সংয়ের সাথে আমাদের নাচানো হয়।আমি ভাইদের মেন্টাল ট র্চারগুলো নিতে পারি নি।

এ রকম অনেক ঘটনা সবার সাথে প্রায় ঘটতো। ১৮ ব্যাচের সবার সাথেই এরকম কমবেশি হয়েছে। তারা হয়তো মজা করে করেছে, বাট তাদের মজাগুলো সবাই নিতে পারেনি। অনেক রাতে বাথ রুমে কান্নাকাটি করেছি। প্রথমে আমি অনেক পড়ালেখা করলেও এই ভাইদের জন্য পড়ালেখা প্রায় ছেড়ে দিয়েছি। আমি প্রথম দিকে অনেক একটিভ, হাসিখুশি ছিলাম; বুয়েটে কয়েকদিন থাকার পরের অবস্থা ব্যাচমেটকে/ক্লোজ ভাইদের জিজ্ঞাসা করলেই জানতে পারা যাবে। বুয়েটকে বাইরে দেখে অনেক ভালো লাগত, ভিতরে এতো খারাপ অবস্থা ভর্তি পরীক্ষায় আর দুইটা অঙ্ক ভুল করলে কোনোদিন জানতাম না।’