কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ধান্যদৌল সহ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ফসলী জমি থেকে ক্ষনন যন্ত্র (ড্রজার মেশিন) দিনে অপরিকল্পিতভাবে বানিজ্যিক ভিত্তিতে মাটি উত্তোলন করা হচ্ছে অবাধে। এতে করে দিনে দিনে উজাড় হচ্ছে ফসলী জমি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, উপজেলা সদর ইউনিয়নের নন্দীপাড়া মৌজার ধান্যদৌল এলাকায় ফসলি জমি থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি ক্ষনন ও মাটি ভরাটের প্রতিযোগিতা চলছে। কল্পবাস গ্রামের ড্রেজার মেশিনের মালিক জাকির হোসেন এবং একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবদ জমির মালিকদেরকে অতিরিক্ত মুনাফার লোভ দেখিয়ে ফসলী জমি থেকে মাটি বিক্রি করতে প্রভাবিত করে আসছে।এতে করে দ্রুত কমছে ফসলী জমির পরিমান এবং পরিবেশের ভারসাম্য হারাচ্ছে।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার কয়েকজন গন্যমান্য ব্যাক্তি জানান, করোনা ভাইরাসের কারনে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দার আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যখন দেশবাসীকে কৃষিখাতের উপড় জোর দেয়ার আহবান জানাচ্ছেন ঠিক একই সময় ফসলী জমি থেকে মাটি কেটে সাবার করে দেয়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানের পরিপন্থী। তারা জানান, এই বছর ড্রেজার মেশিন দিয়ে অন্তত দশ একর ফসলী জমির মাটি কেটে নিয়েছে এই চক্রটি। যত্রতত্র বাড়ি নির্মাণের ফলে তৈরি হচ্ছে জলাবদ্ধতার। যা অদুর ভবিষ্যতে ভয়াবহ রূপ ধারণ করবে।

এব্যাপারে সরেজমিনে গিয়ে ড্রেজার মেশিনের মালিক জাকির হোসেনের সাথে কথা বলতে চাইলে তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এই ব্যপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ জাফর সাদিক চৌধুরী বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: