ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশের মেয়েরা

ডেস্ক রির্পোটঃ ভারত থেকে চরম হতাশাই উপহার দিয়েছিল পুরুষ ক্রিকেট দল। আফগানিস্তানের মত দলের কাছে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পুড়তে হলো। চারদিকে হতাশা আর ব্যর্থতার খবরের মাঝেও যখন ক্রিকেটটা বাংলাদেশের মানুষকে আনন্দ দিতো, তখন সেই ক্রিকেটও পথ হারিয়ে বসেছিল দেরাদুনে গিয়ে; কিন্তু সত্যিই কি ক্রিকেট এত সহজে হারতে পারে? পারে না।

পারে না বলেই, পুরুষ ক্রিকেটাররা না পারুক, নারী ক্রিকেটাররা বয়ে নিয়ে এলো বাংলাদেশের জন্য দারুণ এক সু-সংবাদ। তৈরি করলো এক গৌরবোজ্জল ইতিহাস। ক্রিকেটের ইতিহাসে (হোক সেটা পুরুষ কিংবা নারী) প্রথম কোনো ট্রফি জয়ের স্বাদ দিলো বাংলাদশের নারী ক্রিকেটাররা। কুয়ালালামপুরের কিনরারা একাডেমি ওভাল মাঠে নারী ক্রিকেটের পরাশক্তি ভারতকে ৩ উইকেটে হারিয়ে নারী এশিয়া কাপের শিরোপা জিতে নিলো বাংলাদেশ।

এর আগে কুয়ালালামপুরের কিনরারা একাডেমিতে এশিয়া কাপের ফাইনালে টসে জিতে ভারতীয় মেয়েদের ব্যাটিংয়ে পাঠান বাংলাদেশ অধিনায়ক সালমা খাতুন।

তবে বাংলাদেশি নারীদের বোলিং তোপে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় ভারত। টি-টোয়েন্টির ফরম্যাটের এ ম্যাচে ইনিংসের শেষ বলে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করা ভারতীয় অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌরকে আউট করেন খাদিজাতু কুবরা। ৪২ বলে ৭টি চারে নিজের ইনিংস সাজান কৌর। পরে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১২ রান করতে পারে ভারত।

১১ রান করা ভারতের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসমস্যান মিতালি রাজকে এর আগে বিদায় করেন খাদিজাতুল কুবরা। জাহানারা আল ফেরান দিপ্তি শর্মাকে। স্মৃতি মানধানা রান আউট হন। তবে অর্জুন পাতিল অবসট্রাকিং দ্য ফিল্ড হয়ে আউট হন।

বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে দুটি করে উইকেট লাভ করেন খাদিজা ও রুমানা আহমেদ। এছাড়া সালমা ও জাহানারা একটি করে উইকেট দখল করেন।

এর আগে এই টুর্নামেন্টেই গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ভারতকে সহজেই হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ