গত পাঁচ দিন বন্ধ থাকার পর দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত হতে টেন্ডার করা পেঁয়াজগুলো এসেছে। তবে পেঁয়াজগুলো ১২ দিন ভারতের অভ্যন্তরে ট্রাকের মধ্য ত্রিপল দিয়ে বাঁধিয়ে রাখার কারণে অধিকাংশই নষ্ট হয়ে গেছে।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা জানান, গতকাল শনিবার ভারত হতে যে পেঁয়াজগুলো আমদানি হয়েছে সেগুলোর গুনগত মান নষ্ট হয়ে গেছে। যার ফলে কোটি কোটি টাকা ক্ষতির মুখে পরতে হচ্ছে তাদের। প্রতি বছর ভারত সরকার কোনও একটি অজুহাত দেখিয়ে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এতে আমদানিকারকরা কোটি টাকা ক্ষতির মুখে পড়েন।

তারা আরও জানান, আজ নষ্ট হওয়া পেঁয়াজের বস্তাগুলো ৫০ থেকে ৭০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। একটু ভালো মানের পেঁয়াজগুলো প্রকারভেদে ২৫ থেকে সর্বোচ্চ ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সাইফুল ইসলাম নামে এক পেঁয়াজ আমদানিকারক বলেন, কিছুদিন পরপরই ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এতে করে আমরা লোকসানের মুখে পড়ি। দুই দেশের সরকারকেই বিষয়টি সুরাহা করার আহ্বান জানাই। তাহলে আমরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতাম না, বাজারও নিয়ন্ত্রণে থাকত।

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে টানা পাঁচদিন আটকে থাকার পর শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে অবশেষে বাংলাদেশে ঢোকে নিষেধাজ্ঞার আগে এলসি করা ও এলসির বিপরীতে টেন্ডার করা ভারতীয় পেঁয়াজের ট্রাক। এতে আমদানিকারকদের পাশাপাশি সাধারণ ভোক্তাদের মাঝেও স্বস্তির ছাপ পড়ে। তবে হিলি স্থলবন্দরে মাত্র ১১টি ট্রাক আসার পরই বন্ধ হয়ে যায় এই কার্যক্রম।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: