কুমিল্লায় দাফনের ৬ মাস পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন

মুরাদনগর সংবাদদাতাঃ কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা বাজার থানাধীন চাপিতলা ইউনিয়নের চাপিতলা গ্রামের সাবেক কৃষি কর্মকর্তা আবু তাহের ভূইয়ার ছেলে রেজাউনুল বারী চঞ্চলকে(৩৫) দাফনের ৬ মাস পর আদালতের নির্দেশে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও মুরাদনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রায়হান মেহবুবের উপস্থিতিতে চাপিতলা গ্রামের কবর থেকে লাশ উত্তোলন কাজ শুরু হয় এবং বেলা ২টায় উত্তোলন কাজ শেষ করে কুমিল্লা জেলা পিবিআই পুলিশ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা ও জেলা পিবিআই পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম, এসআই নজরুল ইসলাম, বাঙ্গরা বাজার থানার এসআই জীবন রায় চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান কাইয়ুম ভূইয়া, সাবেক চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদসহ এলাকার বিভিন্ন শ্রেনীর লোকজন। এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়। কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট লাশ উত্তোলন পূর্বক ময়না তদন্তের নির্দেশ প্রদান করে।

প্রসঙ্গত, রেজাউনুল বারী চঞ্চলের বাবার মৃত্যুর পর গ্রামের বাড়ী চাপিতলায় তার পৈত্রীক সম্পত্তির খোঁজ খবর নিতে এসে দেখেন চাচা আব্দুছ ছালাম ভূইয়া অধিকাংশ জমি বেদখল করে নেয়। এ নিয়ে গত ১২ ফেব্রুয়ারী পারিবারিক ও জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চাচা এবং চাচাতো ভাইয়েরা চঞ্চলকে মারধর করে আহত করে। ঘটনার ৭ দিন পর ১৯ ফেব্রুয়ারী সকালে আহত অবস্থায় তার মৃত্যু হলেও হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলে চালানো হয়। ঘটনার ৫ মাস পর মৃত্যু বিষয়টি পরিবারের কাছে রহস্য জনক মনে হলে মা মনোয়ারা তাহের ভূইয়া বাদী হয়ে গত ২২ জুলাই কুমিল্লার ৮নং আমলী আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরে আদালত মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)’কে মামলাটি তদন্ত করার নির্দেশ প্রদান করেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ