যে কারণে জাতীয় দলের চুক্তি থেকে বাদ হলেন ৬ ক্রিকেটার

ডেস্ক রিপোর্টঃ বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের কেন্দ্রীয় চুক্তির মেয়াদ এরইমধ্যে শেষ হয়েছে। বুধবার (১৮ এপ্রিল) বিসিবির পরিচালনা পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সভায় ২০১৮ সালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কেন্দ্রীয় চুক্তিতে রাখা হচ্ছে ১০ জন ক্রিকেটারকে।

গত বছরের চুক্তিতে থাকা ১৬ জনের মধ্যে ৬ জনকে বাদ দেয়া হচ্ছে নতুন চুক্তি থেকে। বাদ পড়ার তালিকায় রয়েছেন, সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাসকিন আহমেদ, ইমরুল কায়েস, সাব্বির রজমান এবং কামরুল ইসলাম রাব্বি।

তাদেরকে নতুন চুক্তির আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। শুধু ছয়জনকে ছেঁটে ফেলাই নয়, প্রতি বছর একজন হলেও নতুন করে চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারের তালিকায় যুক্ত হন। এবার সে ধারারও ব্যাত্যয় ঘটেছে। এবার কোন ক্যাটাগরি কিংবা শিক্ষানবিশ হিসেবেও নতুন কোন ক্রিকেটারের সাথে চুক্তি করা হয়নি।

পুরনোদের মধ্য থেকে ১০ জনকে চুক্তির আওতায় আনা হয়েছে। হঠাৎ একসঙ্গে ছয় ক্রিকেটারেরর চুক্তি থেকে বাদ পড়া নিয়ে রীতিমত চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে ক্রিকেটপাড়ায়। নানা প্রশ্ন উঁকি-ঝুকিও দিচ্ছে।

সাব্বির রহমান রুম্মন তার অখেলোয়াড়োচিত আচরণ এবং শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে চুক্তির বাইরে চলে গেছেন।

কেন ছয়জন জাতীয় ক্রিকেটারকে একসঙ্গে চুক্তির বাইরে ঠেলে দেয়া হলো? বোর্ড পরিচালকদের নিয়ে সভা শেষে আজ সন্ধ্যায় মিডিয়ার সাথে কথা বলতে গিয়ে এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনও। তিনি অবশ্য এক কথাতেই সব পাড়ি দিয়েছেন।

সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাব্বির রহমান রুম্মন, তাসকিন আহমেদ আর কামরুল ইসলাম রাব্বির বাদ পড়ার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘পারফরমেন্সই ছিল একমাত্র বিবেচ্য। পারফরমেন্সের কারণে তারা চুক্তি থেকে বাদ পড়েছে।’

বিসিবি সভাপতি বোর্ড সভা শেষে মিডিয়ার সাথে আলাপকালে শুধু ওই একটি ব্যাখ্যা দিলেও ভিতরের খবর হলো, এবার বোর্ড আগের মত ঢালাওভাবে চুক্তি না করে মূলত, টেস্ট এবং ওয়ানডে দলের ক্রিকেটারদের অগ্রাধিকার দিয়ে চুক্তি করেছে।

আর সে কারণেই ক্রিকেট অপারেশন্সকে আগেই চুক্তিভুক্ত ক্রিকেটারের সংখ্যা ১৬ থেকে কমিয়ে ১২ কিংবা ১০-এ নামিয়ে আনার কথা বলা হয়েছে। বোর্ডের একটি উচ্চ পর্যায়ের অতি নির্ভরযোগ্য সূত্রে পাওয়া খবর হলো, বোর্ড এবার নীতিগতভাবে আগে-ভাগেই ঠিক করে রেখেছিল, যারা টেস্ট এবং ওয়ানডে দলে নিয়মিত সদস্য- তারাই চুক্তিতে অগ্রাধিকার পাবেন। তাদের রেখেই আসলে চুক্তিভুক্ত ক্রিকেটারের তালিকা প্রনয়ণ করবেন।

যে ১০ জনকে চুক্তির আওতায় রাখা হয়েছে, তাদের নাম শুনলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে। তারা হলেন, মাশরাফি, তামিম, মুশফিক, সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, মুমিনুল, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজ, রুবেল ও তাইজুল।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ