নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা। কিন্তু এ জেলার সড়কগুলো কোথাও উচুঁ আবার কোথাও নিচু হওয়ায় খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। সড়কে দু’পাশ জুড়ে রয়েছে পাহাড়। তার উপরে দাঁড়িয়ে আছে সারি সারি গাছ। সবুজ সমারোহে ভরা এই সড়কটি।

এই সড়কের রাঙ্গামাটি আনসার ক্যাম্প হতে ঘাগড়া বাজার থেকে কিছুটা দূরে পর্যন্ত গাছে-গাছে শোভা পাচ্ছে মহান আল্লাহ তায়ালার জিকির। প্রায় দেড় কিলোমিটার পর্যন্ত অন্তত অর্ধশতাধিক গাছে মহান আল্লাহ তায়ালার জিকির সম্বলিত ছোট আকারের সাদা কাগজে কালো কালিতে লেখা লেমেনেটিং করা গাছে পেরেক ঠুকে সাঁটানো রয়েছে- বিসমিল্লাহ, মাশাল্লাহ, লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ,সোবাহানআল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ ও ফি আমানিল্লাহ সহ মহান আল্লাহ তায়ালার গুণবাচক নামসমূহ। আল্লাহ তায়ালার মহিমাময় নামের জিকিরগুলি সহজেই পথচারী ও পর্যটকদের নজর কাড়ছে বলে জানা গেছে স্থানীয় সূত্রে।

স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গাছে সাঁটানো এ ধরণের লেখা সাধারণ মানুষের নজর সহজেই কাড়ছে। সড়কের দুই পাশের গাছ-গাছালি আলো বাতাস প্রশান্তি দেয়। আর এখন গাছে লাগানো ছোট ছোট পোস্টার আমাদেরকে সাহস জোগায় এবং আকর্ষণও বাড়িয়েছে পথচারীদের। এই ধরণের মহৎ ও ব্যতিক্রমি উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন ঘাগড়া মুসলিম যুব সমাজ। আর ধর্মপ্রাণ মানুষজন খুশি এমন মহৎ ও ব্যতিক্রমি উদ্যোগে।

তারা আরো জানান, নিয়মিত এই সড়ক দিয়ে তারা যাতায়াত করেন। চলার পথে সৃষ্টিকর্তার নাম ও প্রশংসা সম্বলিত লেখাগুলো তাদের আনন্দ দেয়। চোখ পড়তেই লেখাগুলো পড়েন, এটি সওয়াবের (পূণ্যের) কাজ। যারা এগুলো গাছে সাঁটিয়েছে তারা তো সওয়াব পাচ্ছেন। আমরাও চলার পথে জিকির করে সওয়াব পাচ্ছি। এটা খুবই ভালো উদ্যোগ বলে তারা জানান।

এ বিষয়ে ঘাগড়া মুসলিম যুব সমাজ এর সভাপতি কেএম সাদ্দাম জানান, এই উদ্যোগে অন্য কোন কারণ নেই। শুধু মানুষের বিপদ থেকে রক্ষার জন্য এবং কল্যাণের জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার মহিমাময় নামের জিকিরগুলি সড়কের গাছে-গাছে লাগানো হয়েছে। যাতে মানুষ বড় ধরনের সড়ক র্দূঘটনা থেকে রক্ষা পাই।