ক্যান্সার নিরাময় হাসপাতালের লটারী জিতেও ৩০ লাখ টাকা পেল না দিনমজুর সেলিম। সাত বছর ধরে লটারির টিকিট কিনতেন ময়নসিংহের ত্রিশালের দিনমজুর সেলিম মিয়া। আশা ছিল লটারী জিতে লাখপতি হবে। তবে, ক্যান্সার নিরাময় হাসপাতালের লটারীর টিকিট জিতেও টাকা পাননি সেলিম। একটি বেসরকারি টেলিভিশনের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এ তথ্য।

সেলিম মিয়া বলেন, তার প্রতিক্ষার অবসান ঘটে সবশেষ ক্যান্সার নিরাময় হাসপাতাল লটারি ২০১৯-এ। প্রথম পুরস্কার ৩০ লাখ টাকার নম্বরটি মিলে যায় তার টিকিটের সাথে। তবে টাকা পাননি তিনি।

সেলিম মিয়া আরও বলেন, লটারি বিক্রির সময় বলছে বাড়ি পাবেন, গাড়ি পাবেন। এখন বাড়িও পাই নাই। গাড়িও পাই নাই। ১০ টাকাও পাই নাই। টাকা পেতে চেষ্টা তদবির করেছেন চার মাস। টাকা না পেয়ে রাগে-ক্ষোভে-অভিমানে শেষে চুলার আগুনে পুড়িয়ে ছাই করেছেন স্বপ্নের সেই লটারির টিকিট।

>>আরো পড়ুনঃ  সেই যুবলীগ নেতা সম্রাট এখন কোথায়?

তবে, টাকা না পেলেও এলাকায় তার নাম হয়েছে লাখোপতি সেলিম। লটারীর টাকার চিন্তায় মানসিক ভারসাম্য কিছুটা হারিয়েছেন তিনি। লটারির উদ্যোক্তা ডা. মোল্লা ওবায়দুল্লাহ বাকি টেলিফোনে জানান, প্রথম পুরস্কারের দাবি করেনি কেউ। নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেছে, তাই আর সুযোগ নেই টাকা দেয়ার।