নিজস্ব প্রতিনিধিঃ স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি মন্ত্রী) মো: তাজুল ইসলাম এমপি বলেছেন বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামকে শহরে রূপান্তরিত করার অঙ্গীকার নিয়ে কাজ শুরু করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার। শহরের সকল সুযোগ সুবিধা গ্রামে পৌছে দেওয়া হবে। সে অঙ্গীকার নিয়ে যে যাত্রা আরম্ভ হয়েছে তার বেশিরভাগ অংশ এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের উপর অর্পিত বাংলাদেশ উন্নত দেশের কাতারে স্থান করে নেবে। শান্তি সম্প্রীতির দেশ বাংলাদেশ। এদেশে সকল ধর্মের মানুষের মধ্যে মিল মিশ রয়েছে। যে যার ধর্ম পালন করছে। গতকাল ঐতিহ্যবাহী মজলিশপুর ধর্মাপংকুর বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ প্রজ্ঞাজ্যোতি স্থবির মহোদয়ের মহাস্থবির বরণ উৎসব ও বৌদ্ধ ধর্মীয় মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, আমি আপনাদের সন্তান। আমাকে বাংলাদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব যাতে আমি সততা ও নিষ্ঠার সাথে পালন করে যেতে পারি সে জন্য সকলে আমার জন্য আর্শিবাদ করবেন। আপনাদের দোয়া ও ভালোবাসা নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। কুমিল্লা- নোয়াখালী সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতির প্রধান উপদেষ্টা দর্শন বারিধি অধ্যাপক ধর্মরক্ষিত মহাথের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন কুমিল্লা-নোয়াখালী সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতির সাধারণ সম্পাদক শ্রীমৎ জিনানন্দ মহাথের। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, লাকসাম উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট ইউনুছ ভূঁইয়া, লাকসাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার একেএম সাইফুল আলম, মনোহরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম বানু শান্তি, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সদস্য এডভোকেট আবু তাহের, এডভোকেট তানজিনা আক্তার, লাকসাম পৌরসভা মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, কুমিল্লা জেলার নির্বাহী প্রকৌশলী মো: সোহরাব আলী, লাকসাম সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নাজমুল হাসান, লাকসাম উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট রফিকুল ইসলাম হিরা, লাকসাম থানার ওসি মনোজ কুমার দে, মনোহরগঞ্জ থানার ওসি মেজবাহ উদ্দিন ভূঁইয়াসহ আরো অনেকে।