নুসরাত হত্যায় যারা অংশ নিয়েছিলেন তাদের মধ্যে একজন ছিলেন নুসরাতের বান্ধবী ও সহপাঠী। কামরুন নাহার মণি, এই মামলার ১৬ নম্বর আসামি পেটে পাঁচ মাসের সন্তান নিয়েই নুসরাতকে হত্যা করেন। গ্রেফতার হওয়ার পর গত ২১ সেপ্টেম্বর মণি জন্ম দেন একটি কন্যাসন্তানের। কন্যাকে কোলে নিয়ে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) নিজের ফাঁসির আদেশ শোনেন মণি।

নুসরাতকে হত্যার সময় এই মণিই কেরোসিন ঢালেন প্রথম এবং নুসরাতের গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। এছাড়া, হত্যায় সরাসরি অংশ নেয়া তিন পুরুষের জন্যে বোরকা ও হাতমোজা তিনিই কেনেন। মামলা চলাকালে আদালতে নিজের দোষ স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছিলেন মণি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: