স্পোর্টসম্যানশিপের প্রশংসায় ভাসছেন কুমিল্লার অধিনায়ক তামিম

ডেস্ক রিপোর্টঃ রান ‘আউট’ হয়ে ড্রেসিংরুমের পথ ধরা কেভিন কুপারকে ফিরিয়ে ক্রীড়াসুলভ আচরণের পরিচয় দিয়েছেন দেশসেরা ওপেনার ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ১৭ ওভার শেষে ম্যাচের তখন ১৮তম ওভার চলছে। ওভারের প্রথম বলে ক্যারিবীয় ক্রিকেটার ডোয়াইন ব্রাভোর বলে আউট হয়ে সাজঘরে ফিরেছেন স্বদেশী কাইরন পোলার্ড। এরপর ক্রিজে আসলেন ব্রাভোর আরেক স্বদেশী কেভন কুপার।

ওভারের দ্বিতীয় বলে রান নিতে গিয়ে ধাক্কা লাগে ব্রাভো এবং কুপারের মধ্যে। বাঁধা পেয়ে থেমে যান দুজনই, ব্রাভো পড়ে যান মাটিতেই। এতে নির্ধারিত গতিতে ক্রিজের সীমানায় ঢুকতে পারেননি কুপার। ততক্ষণে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ফিল্ডাররা উপরে ফেলেছেন স্ট্যাম্প।

স্বভাবতই উইকেট হারিয়ে ততক্ষণে সাজঘরের পথ ধরেছেন ঢাকা ডায়নামাইটস ব্যাটসম্যান কেভন কুপার। কিন্তু এমন সময়ে সবাইকে অবাক করে দিয়ে তার কাছে ফিরে গেলেন তামিম। তাকে অনুরোধ জানালেন ক্রিজে ফিরে আসার। কুপার অবশ্য কর্ণপাত না করে হাঁটছিলেন প্যাভিলিয়নের পথেই। তামিম আবারও তাকে ফিরে আসার অনুরোধ করে। অনুরোধ করেন ঢাকার কর্মকর্তারাও। শেষমেশ আবারও ক্রিজে ফিরে আসেন আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রান-আউট হওয়া কুপার।

ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মধ্যকার ম্যাচ শেষে জয়ী অধিনায়ক কুমিল্লার অধিনায়ক তামিম ইকবালের এমন কাজ প্রশংসিত হচ্ছে বেশ। মাঠের বাইরে, এমনকি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেই সবাই স্তুতি গাইছেন তামিমের এমন স্পোর্টসম্যানশিপের।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বলেন, ‘তামিম দৃষ্টান্ত রেখেছেন। কুপার আউট হয়েছিল আমরা চাইলে তাকে না ফেরালেও পারতাম। কিন্তু এই জায়গায় তামিম ভালো উদাহরণ রাখলেন।’

ঐ মুহূর্তে ম্যাচে সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল কুমিল্লা। তবে তামিমের ভাষ্য, ম্যাচে ব্যাকফুটে থাকলেও একই কাজ করতেন তিনি।

ড্যাশিং ওপেনার বলেন, ‘আমরা ক্রিকেটকে বলি ভদ্রলোকের খেলা। আমাকে তাই সৎ থাকতেই হবে। সেটিই চেষ্টা করেছি। আমার দল যদি হারার অবস্থানে থাকত, তাহলেও আমি একই কাজ করতাম।’

উল্লেখ্য, ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ১২ রানে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান দখলের পাশাপাশি শেষ চারে জায়গা নিশ্চিত করে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ