দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপটি, শনিবার (১৬ মে) বিকেল বা সন্ধ্যের মধ্যেই ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। একইসঙ্গে ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ররূপ নেবে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়ে। ঘূর্ণিঝড়টির নাম দেয়া হয়েছে ‘আম্ফান’। প্রথমে ঘূর্ণিঝড়ের অভিমুখ উত্তরমুখী হলেও পরে তা বাঁক নিয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হবে। এখন পর্যন্ত যা গতিপ্রকৃতি, তাতে মঙ্গল-বুধবার ভারতের কলকাতা উপকূলে ‘আম্ফান’-এর আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে, রোববার (১৭ মে) ঘূর্ণিঝড়টি ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। পরে আরও শক্তি বাড়িয়ে অতি ভয়ংকর রূপ নেবে। মঙ্গলবার (১৯ মে) ঘূর্ণিঝড়ের গতি পৌঁছে যেতে পারে প্রতি ঘণ্টায় ১৭০-২০০ কিলোমিটার। স্থলভাগের দিকে যত এগুবে, তার গতি কিছুটা কমে। তবে আছড়ে পড়ার সময় আম্ফান কতটা শক্তি বাড়াবে, তা এখনই নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শনিবার (১৫ মে) দুপুরে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরের উপরে গভীর নিম্নচাপটি ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে ১ হাজার ৬০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। দিঘা থেকে ১ হাজার ২২০ কিলোমিটার, বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ১ হাজার ৩৩০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে।